Football Capital of India Bengal will get boost for Football Industries – Bengal MSME revives football production industry

0
3550
Football Industry - West Bengal
Football Industry - West Bengal

Bengal MSME revives football production industry

Bengal MSME revives football production industry

In order to revive the industry of making footballs, the West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee had taken up an initiative under the MSME Department. Headed by ex-footballers Manas Bhattacharya, Bidesh Bose and Prasanta Banerjee, the initiative has taken shape with footballs being manufactured again from a unit in Tarakeshwar.

The footballs are being made by a Government agency called Refugee handicrafts. The finished products have also passed necessary quality tests.

It is also being given a thought that these footballs be used for distribution to clubs and training camps.

With the ex-footballers handling the project, the revival of one more lost art is now evident, also providing livelihood to quite a number of people.

বাংলার  ফুটবল উত্পাদন শিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করতে উদ্যোগ রাজ্য সরকারের

বাংলার মাঠজুড়ে যেখানে ফুটবলের সাম্রাজ্য, সেখানে বাইরের রাজ্য থেকে আর ফুটবল কিনতে হবে না এখানকার খেলোয়াড়দের। তারকেশ্বরের কারখানায় শুরু হয়েছে ফুটবল তৈরি। বাংলার ছেলেদের বাংলায় তৈরি সেই ফুটবলে উৎসাহ দিতে এবার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হয়েছেন মানস ভট্টাচার্য, বিদেশ বসু, প্রশান্ত বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো কিংবদন্তি ফুটবলাররা।

রাজ্য ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প দপ্তরের আওতায় একটি সংস্থা রয়েছে, যার নাম রিফিউজি হ্যান্ডিক্র্যাফ্টস। এখন কুটির শিল্পের উন্নয়নই সংস্থাটির লক্ষ্য।

মানসবাবু বলেন,  “প্রাথমিক পর্যায়ে ২০টি ফুটবল তৈরি করে তার গুণগত মান বিচারের জন্য পাঠানো হয়েছিল পাঞ্জাবের জলন্ধরে। সেখানে ১৯টি বলকে যথাযথ বলে জানানো হয়েছে। অর্থাৎ, আমরা যে কাজটি করতে চেয়েছিলাম, তাতে প্রাথমিকভাবে সফল। মোট ৬০জনকে ট্রেনিং দিয়ে কাজ শুরু করেছিলাম, আগামী তিন মাসে আরও ৪১জনকে ফুটবল তৈরির ট্রেনিং দেওয়ার কাজ শেষ হবে”।

এই মুহূর্তে রাজ্যে ফুটবলের চাহিদা আছে প্রায় ৪০ হাজার। সার্বিকভাবে যাতে ফুটবল গড়ার প্রকল্পটি সফল করা যায়, তারজন্য সব দিক থেকে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।