Time has come for Poriborton in Tripura: Mamata Banerjee

0
897
Tripura-Didi
Tripura-Didi

Time has come for Poriborton in Tripura: Mamata Banerjee

With an aim to expand the base of the party, Trinamool Congress Chairperson Mamata Banerjee today addressed a public rally in Tripura at Vivekananda Stadium, commonly known as Astabal ground, in Agartala.

A huge crowd cheered Mamata Banerjee as she called for ‘Poriborton’ in Tripura. She said that after 34 years of misrule in Bengal, there is a surge of development in the State; time has come for Tripura to say goodbye to the CPI(M).

The Assembly election in Tripura is scheduled for 2018. The All India Trinamool Congress is currently the main Opposition party in the state.

Highlights of Mamata Banerjee’s speech:

On Bengal verdict

In Bengal we have the Government of Maa-Mati-Manush; now let there be a Maa-Mati-Manush Government in Tripura also. During the elections in Bengal, a slander campaign was launched by some leaders. People hit the Opposition for a sixer through their mandate. Trinamool stands development, progress and moving ahead. Trinamool fulfills the promises it makes.

On CPI(M)-Congress alliance

The CPI(M) does not understand anything but torture, and the Congress is in cahoots with them. We came out of the Congress the day they sold their ideology to the CPI(M). We were able to establish Trinamool because we walked out of the Congress. The CPI(M) was responsible for the birth of chit funds.

On BJP

The BJP Government does not do any work; it blows its own trumpets during elections. The BJP only interferes in the business of the State; it is not following the federal structure. BJP wants to scare us but we will keep marching forward fearlessly.

On development in Bengal

We have distributed 40 lakh bicycles under Sabuj Sathi. We get only 10% of Central funds whereas Tripura gets 90%. We have been giving rice at Rs 2 per kg since we came to power. The people of Jangalmahal get these advantages too. We have worked for the welfare of tribal people. We have set up 41 multi super-speciality hospitals in Bengal.

We have started Kanyashree scholarships for girls. We have instituted the Sikshashree Scheme for tribal students. In Bengal we have started Fair Price Medicine Shops, free heart operation for children. We can do the same for you. Fifteen thousand children have got cardiac surgery free of cost in Bengal.

On misrule in Tripura

What have the comrades done for Tripura? Is there any good hospital here? Do the people of Tripura get free healthcare in Government hospitals? People go to Delhi or Assam for treatment. There is only loot and plunder here. FIRs are rejected. The police force is controlled by the CPI(M).

Potatoes cost Rs 35-40 per kg in Tripura but in Bengal, we have set up fair price shops selling potatoes at Rs 14.

Comrades, you can always call me names; work for the people before you criticise me. We have witnessed violence in Netai, Nandigram and Singur. We have witnessed a lot of violence in Udaypur (in Tripura). We cannot be scared by fear tactics. Trinamool cannot be stopped by taking cable TV channels off air.

Slogan for change

The time has come for the CPI(M) to leave Tripura; the time has come for Poriborton. We will launch all the successful Bengal initiatives in Tripura. We will achieve victory; Trinamool will emerge victorious here. Rabindranath Tagore wrote Bisarjan; let today’s meeting be the call for CPM’s ‘bisarjan.’ Trinamool doesn’t want to just come to power in Tripura, it wants to work for the people.

 

ত্রিপুরায় পরিবর্তনের সময় এসেছে: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

তৃণমূলকে জাতীয় স্তরে আরও বিস্তার করার লক্ষ্যে ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ আগরতলার আস্তাবল মাঠে  তিনি একটি জনসভা করেন।

সভামঞ্চ থেকে যখন তিনি ত্রিপুরার পরিবর্তনের ডাক দেন তখন উল্লাসে চিৎকার করে জনতার ভিড়। তিনি বলেন, ৩৪ বছর অপশাসনের পর বাংলায় যেমন উন্নয়নের জোয়ার এসেছে তেমনই ত্রিপুরাতেও সিপিএমের বিদায়ের সময় এসে গেছে।

২০১৮ সালে ত্রিপুরায় বিধানসভা নির্বাচন। বর্তমানে সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসই প্রধান বিরোধী দল।

ত্রিপুরায় জননেত্রীর বক্তব্যের কিছু অংশ

বাংলায় বিপুল জয় সম্বন্ধে

বাংলায় এখন মা-মাটি-মানুষের সরকার, এবার ত্রিপুরাতেও মা-মাটি-মানুষ সরকার গঠন করবে। বাংলায় নির্বাচনের সময় বেশ কিছু নেতারা অপপ্রচার করে বেরিয়েছেন। শেষমেশ মানুষের রায়ে ধরাশায়ী হয়েছে বিরোধীরা। তৃণমূল মানুষের দল, সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে তৃণমূল। তৃণমূল মানে উন্নয়ন, প্রগতি এবং এগিয়ে চলা। তৃণমূল যা প্রতিশ্রুতি দেয় তা পূরণ করে।

সিপিএম-কংগ্রেস আঁতাত সম্বন্ধে

সিপিএম অত্যাচার ছাড়া কিছু জানে না। চিট ফান্ডের জন্মদাতা সিপিএম। এখন বাংলায় সিপিএম-কংগ্রেস বন্ধু হয়েছে। কংগ্রেস সিপিএমের কাছে নিজেদের আদর্শ বিক্রি করে দেওয়ার পর আমি কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে এসে তৃণমূল কংগ্রেস প্রতিষ্ঠা করেছিলাম।

বিজেপি সম্বন্ধে

বিজেপির সরকারের কোনও কাজ নেই, নির্বাচন এলেই ঢাক -ঢোল নিয়ে বেরিয়ে পরে। ওদের কাজ যুক্ত রাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোয় হস্তক্ষেপ করা। ওরা আমাদের ভয় দেখাতে চায়, কিন্তু আমরা ভয় না পেয়ে আমাদের লক্ষ্যে এগিয়ে যাব।

বাংলার উন্নয়ন সম্বন্ধে

আমরা বাংলায় ৪০ লক্ষ ছাত্রছাত্রীদের সাইকেল দিয়েছি। আমরা কেন্দ্র থেকে মাত্র ১০ শতাংশ টাকা পাই কিন্তু ত্রিপুরা ৯০ শতাংশ টাকা পায়। ক্ষমতায় আসার পর আমরা ২ টাকা কিলো দরে চাল দিয়েছি। জঙ্গলমহলও আজ এই সুবিধা পাচ্ছে। আদিবাসীদের জন্য আমরা অনেক কাজ করেছি। বাংলায় ৪১টি মাল্টি সুপার স্পেশালটি হসপিটাল তৈরি হয়েছে।

মেয়েদের জন্য আমরা কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু করেছি। তফসিলি জাতি ও উপজাতির ছাত্রছাত্রীদের জন্য আমরা শিক্ষাশ্রী চালু করেছি। যুবশ্রী, লোক প্রসার প্রকল্পসহ আরও অনেক স্কিম আমরা চালু করেছি। বাংলায় সরকারি হাসপাতালে এখন বিনামূল্যে চিকিৎসা হয়। সরকারি হাসপাতালে ন্যায্য মূল্যের ওষুধের দোকান চালু হয়েছে। ১৫০০০ শিশুদের বিনা পয়সায় হার্ট অপারেশনের ব্যবস্থা করে দিয়েছি আমরা।

ত্রিপুরার অপশাসন সম্বন্ধে

ত্রিপুরার জন্য কি করেছেন কমরেডরা? কোন ভাল হাসপাতাল তৈরি করেছেন? ত্রিপুরার লকেরা সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিতসার সুযোগ পায়? তাদের চিকিতসার জন্য আসাম-দিল্লি যেতে হয়। এখানে শুধু লুঠ আর অত্যাচার। এফআইআর নেওয়া হয় না। সিপিএম পুলিশকে কন্ট্রোল করে।

ত্রিপুরায় আলুর দাম ৩৫-৪০ টাকা। আমরা বাংলায় ন্যায্য মূল্যের দোকান থেকে  ১৪ টাকায় আলু বিক্রি করি।

আমার বিরুদ্ধে কথা বলার আগে মানুষের জন্য কাজ করুন। আমি নেতাই, সিঙ্গুর, নন্দীগ্রাম যেমন দেখেছি তেমন উদয়পুরের অত্যাচারের সাক্ষী আমি। আমাদের ভয় দেখিয়ে কোন লাভ নেই। কেবল টিভি বন্ধ করে তৃণমূলকে থামানো যাবে না।

পরিবর্তনের স্লোগান

ত্রিপুরা থেকে সিপিএমের বিদায়ের সময় এসে গেছে। ত্রিপুরায় এখন পরিবর্তনের সময় এসেছে। আমরা বাংলায় যা যা উন্নয়ন করেছি তা ত্রিপুরাতেও করব। আমরাই জয়ী হব, তৃণমূলই জয়লাভ করবে। রবীন্দ্রনাথ  ঠাকুর ‘বিসর্জন’ লিখেছিলেন। আজকের এই সভা থেকে সিপিএমের ‘বিসর্জন’ শুরু হল। শুধু ত্রিপুরায় সরকার গঠন আমাদের লক্ষ্য নয়, আমাদের লক্ষ্য মানুষের জন্য কাজ করা। কাজ করাটাই আমাদের ধর্ম।