No politics over development: Bengal CM in Kalimpong

0
761
Mamata Bengerjee - Second Government Oath 10
Mamata Bengerjee - Second Government Oath 10

No politics over development: Bengal CM in Kalimpong

No politics over development: Bengal CM in Kalimpong

On the second day of her three-day trip to the Hills, Bengal Chief Minister Mamata Banerjee inaugurated a number of developmental projects.

Among the projects inaugurated today were the eight new cottages of the Kalimpong Tourist Lodge at Morgan House, a treasury building in Kalimpong, a marketing hub at Suruk-Samther in Kalimpong Block –I, the HDU unit at Kalimpong sub-divisional hospital, the office of DSP (Traffic) and police barracks in Vimbore (Bidhannagar), police station and force barracks in Sukhiapokhri, a hall at the Darjeeling minority centre, roads in Phansidewa, beautification project around Jalpaiguri Sadar Hospital, and the office of the Tea Directorate on Hill Cart Road.

The Chief Minister also laid the foundation stones of the New Jalpaiguri police station and the community hall at Lorungdhura in Jorbungalow .

She also distributed services like cheques for Geetanjali scheme and scholarships for Kanyashree, among others.

The Chief Minister began her speech by extending her greetings to the members of the development boards of the various Hills communities. She congratulated the Lepcha Board, whose foundation day it was today, for its great work in the last four years.  She mentioned the 3,000 homes for the poor which have been built by the Lepcha Board, adding that another 1,000 would be built.

She said that the various development boards must promote cultural activities and make Darjeeling clean and green. “We want the Darjeeling Hills region to prosper and become the best”.

Mamata Banerjee has always supported holistic development, to bring about changes both on the social and infrastructural fronts. She reminded people that “the more you work for development, the more funds we will allocate.” She promised to bring “more tribes under SC/ST list and set up more development boards”.

Keeping the impending municipal elections in the region in mind, she added, “Those who win must work for development”.

She mentioned the fact that her Government has sanctioned “ITIs, polytechnic colleges, medical college and education hub for Darjeeling Hills”.

On shoring up the tourism infrastructure in the Hills too, the Trinamool Congress Government has done a lot: as she said, “We want the tourism industry in the Hills to flourish”. Tourism infrastructure at Tiger Hill and its surrounding areas would be given a boost too.

She pointed out her Government’s efforts towards the welfare of all those linked with the crucial tea industry, the lifeline of the economy of the Hills, too: “We have set a separate tea directorate for north Bengal”.

She made a crucial announcement during her speech. She announced that Kalimpong will become a new district, adding, her Government has “allotted Rs 6 crore for building infrastructure” for the new district.

The many splendid missionary schools in the Hills region have always attracted students from far and wide. She said, “We are proud of them”.

All-round development of Bengal, taking everyone along – be it her supporters or those opposed to her – has been the fulcrum of Chief Minister Mamata Banerjee’s message of development ever since she came to power in 2011. She made it clear that it is not to change when she said, “So what if you did not vote for us in the elections? We will keep working for the development of Hills”.

She said the development of the Hills region is integral to the development of the State: “If the Hills do not progress, Bengal cannot progress”.

The Chief Minister turned on her famous charm, that immediately draws everyone towards her, by saying “I am like your sister. We have to live in harmony in the Hills. I will keep coming here”.

She concluded her speech by calling everyone once again to work for the development of the Hills, reminding everyone that “there is no substitute for good work”, and not forgetting to add, “Keep working and we will extend all cooperation”.

 

উন্নয়ন নিয়ে কোন রাজনীতি নয়ঃ কালিম্পঙে মুখ্যমন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে আজ পাহাড় ও সমতল জুড়ে একগুচ্ছ উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সূচনা হল।

কালিম্পঙের মরগ্যান হাউস ট্যুরিস্ট লজ কম্পাউন্ডের আটটি কটেজের, কালিম্পঙের ট্রেজারি বিল্ডিং, কালিম্পং-১ ব্লকের সুরুক সাম্থারে মার্কেটিং হাব, কালিম্পং মহকুমা হাসপাতালে এইচ ডি এউ, সুখিয়াপোখরিতে পুলিশ স্টেশন ও ফোর্স ব্যারাক, ভিম্বরে বিধাননগর ইনভেস্টিগেশন সেন্টারে ডি এস পি ট্রাফিকের কার্যালয় ও পুলিশ ফোর্স ব্যারাক, দার্জিলিঙে সংখ্যালঘু ভবনের সভাকক্ষ, ফাঁসিদেওয়া ব্লকের রাস্তা উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী।

জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকার সৌন্দর্যায়ন প্রকল্পেরও উদ্বোধন করেন তিনি। এছাড়া শিলান্যাস করেন নিউ জলপাইগুড়ি থানা ও জোড়বাংলো সুখিয়াপোখরির লোবুংধুরায় কমিউনিটি হলের।এছাড়াও তিনি নানা পরিষেবা প্রদান করেন। যেমন, গীতাঞ্জলি প্রকল্পের আওতায় গৃহ নির্মাণের জন্য চেক এবং কন্যাশ্রী প্রকল্পের আওতায় ছাত্রীদের বৃত্তি।

বিভিন্ন বোর্ডের সকল সদস্যদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি তাঁর বক্তব্য শুরু করেন।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “গত ৪ বছরে লেপচা বোর্ড অনেক ভালো কাজ করেছে, তাই তাদের আমার অভিনন্দন। লেপচা উন্নয়ন বোর্ড প্রায় ৩০০০ বাড়ি তৈরি করেছে, গরীবদের জন্য আরও ১০০০ টি বাড়ি তৈরি করা হবে।বিভিন্ন উন্নয়ন পর্ষদ গুলির উচিত সাংস্কৃতিক বিকাশে জোর দেওয়া এবং দার্জিলিং- কে ‘ক্লিন অ্যান্ড গ্রিন’ বানাতে হবে। আমরা চাই দার্জিলিঙের আরও উন্নয়ন হোক এবং দার্জিলিং সেরা হোক। উন্নয়নমূলক কাজ করলে আমরা বরাদ্দ অর্থের পরিমাণ আরও বৃদ্ধি করব”।

তিনি আরও জানান যে অন্যান্য উপজাতিদের তপসিলি জাতি ও উপজাতি তালিকাভুক্ত করা হবে এবং আরও উন্নয়ন পর্ষদ গঠন করা হবে। সামনেই পাহাড়ের কর্পোরেশন নির্বাচন, যারা জিতবে তাদের অবশ্যই উন্নয়নমূলক কাজ করতে হবে।

ইতিমধ্যেই পাহাড়ের জন্য অনেক উন্নয়নমূলক কাজ করেছে সরকার। পাহাড়ের জন্য আই টি আই, পলিটেকনিক কলেজ, মেডিক্যাল কলেজ, এডুকেশন হাব তৈরি করা হয়েছে।

আমরা চাই পাহাড়ে পর্যটন শিল্পের আরও প্রসার ঘটুক। উত্তরবঙ্গের জন্য একটি আলাদা টি ডিক্টেটরেট তৈরি করা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “কালিম্পং নতুন জেলা হবে এবং নতুন জেলার পরিকাঠামো তৈরির জন্য ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে রাজ্য সরকার। টাইগার হিলের পর্যটন পরিকাঠামোকে আরও উন্নত করার পরিকল্পনা রয়েছে।  পাহাড়ের উন্নয়ন না হলে বাংলার উন্নয়ন সম্ভব নয়। পাহাড়ে আমাদের শান্তি বজায় রাখতে হবে, আমি বার বার এখানে আসব।আপনারা আমাদের ভোট দেননি তো কি হয়েছে? তা সত্ত্বেও আমরা দার্জিলিঙের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাব। ভালো কাজের কোন বিকল্প নেই। কাজ করে যান, আমরা আপনাদের সহযোগিতা করব”।