State Govt proposes to supply piped water to arsenic-affected areas

0
765
Minister Panchayats & Rural Development and PHE Mr. Subrata Mukherjee
Minister Panchayats & Rural Development and PHE Mr. Subrata Mukherjee

State Govt proposes to supply piped water to arsenic-affected areas

State Govt proposes to supply piped water to arsenic-affected areas

The state Public Health Engineering department has submitted a proposal worth Rs. 5,000 crore for supplying piped water in Arsenic-affected areas.

The Centre is examining the proposal and is likely to give its nod in the near future. Steps have also been taken to supply piped water in Fluoride-affected areas.

According to a survey conducted by the state government in 2005, water in nine districts is severely affected by Arsenic, another fiver are mildly affected and give other are safe from Arsenic.

Water would be taken from rivers and purified. Subsequently, the purified water will be supplied to households through pipeline.

The PHE has installed 200 water ATMs in the affected areas and work is on to install more. Most of the ATMs are in schools. A senior government official has stated that elaborate plans have been made to tackle the problem of Arsenic and Fluoride contamination. It may be mentioned that the PHE has chalked out a scheme to supply filtered water in all villages in the state by 2020 at an estimate Rs 8,000 crore.

 

আর্সেনিক কবলিত এলাকায় পানীয় জল সরবরাহ করবে রাজ্য সরকার

আর্সেনিক প্রবন এলাকায় পানীয় জল সরবরাহ করবে রাজ্য সরকার। রাজ্য জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি বিভাগ এই পাইপ লাইনের জন্য ৫০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে।

কেন্দ্রের কাছে এই প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে। এছাড়াও ফ্লোরাইড affected  এলাকায়ও পানীয় জল সরবরাহ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

২০০৫ সালের সমীক্ষা অনুযায়ী, রাজ্যের ৯ টি জেলা ভীষণভাবে আর্সেনিক কবলিত। বাকি ৫ টি জেলাতে আর্সেনিকের প্রভাব অল্প রয়েছে। বাকি জেলাগুলি আর্সেনিক মুক্ত।

নদী থেকে জল নিয়ে তা পরিশোধন করা হবে। এরপর সেই জল পাইপলাইনের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি সরবরাহ করা হবে।

জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি বিভাগ অইসব এলাকায় মোট ২০০ টি জলের এ টি এম বসিয়েছে এবং আরও এ টি এম বসানোর কাজ চলছে। অধিকাংশ এ টি এম বসানো হয়েছে স্কুলগুলিতে।

সরকারের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে আর্সেনিক এবং ফ্লোরাইড দূষণ সমস্যা মোকাবেলা করার জন্য বিশদ পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে।উল্লেখ করা যেতে পারে যে গ্রামে গ্রামে পরিশোধিত পানীয় জল সরবরাহ করার জন্য আগামী ২০২০ সালের মধ্যে ৮০০০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প চালু করবে জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি বিভাগ।