বাংলার সমবায় আন্দোলন ও গ্রামীন অর্থনীতি – সমবায় দপ্তরের কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প

0
1996
Mamata
Mamata

মাইক্রো ফিনান্স কোম্পানির রমরমা সত্তেও সমবায় সংস্থার গুরুত্ব অস্বীকার করার উপায় নেই| সরকারি সহযোগিতায় গড়ে তোলা সমবায় এক নিশ্চিত ভরসার জায়গা | পশ্চিমবঙ্গ সমবায় আন্দোলন সারা ভারত কে পথ দেখায়|

সমবায় দপ্তরের কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প 

গ্রামীণ বাংলার অর্থনীতির অন্যতম মূল চালিকাশক্তি হল সমবায়। ঋণ প্রদান, স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকে সহায়তা করা, কৃষকদের সাহায্য করার পাশাপাশি নানা কর্মসূচী নিয়ে থাকে সমবায় দপ্তর।

এই দপ্তরের কিছু উল্লেখযোগ্য প্রকল্প:

• স্পেশ্যাল ব্যাড ডেট রিসার্ভ ফর সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কস ও প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটিস

সমাজের পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মানুষদের কল্যাণের জন্য গতবছর প্রদত্ত অনুদানের সাথে এই প্রকল্পের আওতায় ৪% ও ২% হারে প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটি ও সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কগুলিকে অতিরিক্ত অনুদান দেওয়া হয়।

 সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কগুলিকে শক্তিশালী করা

জেলা স্তরে সমবায় ব্যবস্থাকে সুদৃঢ় করতে সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য দুর্বল সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কগুলির মূলধন ও নেট ওয়ার্থ (মোট মূল্য) বাড়ানো।

 প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটিকে শক্তিশালী করা

গ্রামীণ অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটি। এই প্রকল্পের অধীনে দুর্বল প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটিগুলিকে গুদাম ভাড়া করতে, আসবাব কিনতে, টানা তিন বছর স্বনির্ভর গোষ্ঠীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে কার্যকরী করতে সহায়তা করা হয়।

• শেয়ারে বিনিয়োগ

এই প্রকল্পে, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সমবায় ব্যাঙ্ক ও সেন্ট্রাল কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্ক, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সমবায় কৃষি ও গ্রামোন্নয়ন ব্যাঙ্ক, প্রাথমিক সমবায় কৃষি ও গ্রামোন্নয়ন ব্যাঙ্ককে স্টেট শেয়ারের মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা করা হয়।

 অ্যাসিস্টেন্স ফর ইউনিভার্সাল মেম্বারশিপ

ইউনিভার্সাল মেম্বারশিপ প্রকল্পে সমাজের পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মানুষকে জন পিছু ২৫০ টাকা দেওয়া হয় প্রাইমারি এগ্রিকালচারাল ক্রেডিট কোঅপারেটিভ সোসাইটির শেয়ার কিনতে সহায়তা করার জন্য।

• স্বনির্ভর গোষ্ঠীর প্রশিক্ষণ

২ লক্ষেরও বেশী সদস্য আছে এমন স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকে সচেতনতা বৃদ্ধির প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এই প্রকল্পের মাধ্যমে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী বছর থেকে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যদের দক্ষতা বিকাশের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে, যাতে তাদের আয়ও বাড়বে।

• দীর্ঘমেয়াদী ঋণের যোগান

এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য ঋণ দেওয়ার নিয়ম শিথিল করে কৃষি ও গ্রামীণ ব্যাঙ্কের মাধ্যমে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মানুষদের দীর্ঘমেয়াদী ঋণের যোগান দেওয়া। সরকারি সহায়তায় ৩% হারে বিশেষ কৃষি ঋণ পাবে দুর্বল শ্রেণীর মানুষরা।

• হিমঘর তৈরী

এই প্রকল্পে সমবায়ের অধীনের হিমঘরগুলির মেরামত, সংস্কার, সম্প্রসারণে সহায়তা করা হয়। ২০১৮-১৯ সালের জন্য এ বাবদ ২ কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে।

 গুদামঘর তৈরী

প্রাথমিক কৃষি ঋণ সমিতি ও প্রাথমিক কৃষি বিপণন সমিতিগুলিকে গুদামঘর তৈরী ও রক্ষনাবেক্ষন করতে আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়।

 কৃষি বিপণন সমিতিকে সহায়তা

সার,বীজ কেনা এবং সরকার নির্ধারিত ন্যূনতম সহায়ক মূল্যে ধান সংগ্রহ করতে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সমবায় বিপণন সমিতি ও প্রাথমিক কৃষি ঋণ সমিতিগুলিকে আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়।

• গ্রামীণ পরিকাঠামো উন্নয়ন তহবিল

এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য গ্রামীণ পরিকাঠামো উন্নয়ন – যেমন, বড় গুদামঘর, হিমঘর তৈরী, চালকোল বীজের কারখানা তৈরী, ইত্যাদি।