ডাবল ফেলুদা আর সঙ্গে চুর্নীর ঝাঁঝালো ঝালমুড়ি – বাঙালীর ঝাঁঝ নতুন করে চিনলো সবাই

0
613
Bangaleer Jhaaj - Emami Healthy and Teasty New Commercial Launched
Bangaleer Jhaaj - Emami Healthy and Teasty New Commercial Launched

“ছেড়েছও তো অনেক কিছুই পুরনো অভ্যেশ, হাল ছেড়োনা বন্ধু বরং কন্ঠ ছাড় জোরে”

~ কবির সুমন 

ইমামির অনুষ্ঠানের শুরুর আগেই দেখা হলো বাঙালির সেযুগ আর এযুগের দুই ফেলুদার সাথে | সৌমিত্রদা চিনতে পেরে বিখ্যাত হাসি হাসলেন আর সব্যসাচী বললেন “ভিতরে আসছেন তো? “|

পাগল না হলে ডাবল ফেলুদা উপস্থিত আর বিষয় “বাঙালীর ঝাঁঝ”,এদের ছেড়ে, কে আর অন্য কাজে যাবে | সুতরাং হেসে সম্মতি জানালাম | বেনুদা চিরকালীন “পারফেক্ট জেন্টলম্যান” শত ব্যস্ততা সত্ত্বেও অমায়িক ব্যবহার | আর সৌমিত্রদা আধুনিক আর শৌখিন বনেদী বাঙালীর এক আশ্চর্য মেলবন্ধন,এনার্জেটিক এন্ড এভারগ্রীন |

ইমামির সেই জনপ্রিয় “হেলদি এন্ড টেস্টি” সর্ষের তেল খাঁটি বাঙালির স্বাদ ঝাঁঝ দিয়ে যায় চেনা , নতুন মোড়কে প্রচারের জন্য সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী ও চুর্নী গাঙ্গুলী কে নিয়ে কিছু অন্যবদ্য কমার্শিয়াল ভিডিও প্রকাশ করলেন ইমামি কর্তৃপক্ষ |

বই হাতে সৌমিত্র বা কামেরা হাতে জঙ্গলে বেনুদা, কিম্বা ডিরেক্টর চুর্নির দৈনন্দিন জীবনের অঙ্গ হিসাবে বিজ্ঞাপন কে তুলে ধরা, প্রসংশার দাবি রাখে| বেনুদা এই প্রথম কোনো বিজ্ঞাপনের মুখ হলেন | ওয়াইল্ড লাইফ চিত্রগ্রাহক হিসাবে বাস্তবে তিনি বহু সমাদৃত ও প্রকৃত প্রকৃতি প্রেমী তাই তাঁকে নতুন করে ভালো লাগলো | পরিচালক চুর্নির উপস্থাপনা যেন ঝাঁঝালো পরিচালকেরই নিজস্ব বিচরণ ক্ষেত্রে ঘুরে বেড়ানো | তবে বই হাতে সৌমিত্রদার “কফি দিয়ে যা” কথাটা যেন নতুন করে তিন ভুবনের মন্টু মিত্তিরের সেই ঝাঁঝ কে ফিরিয়ে দিল | এক মুহুর্তে একটা কোলাজ হয়ে, সারা জীবনের ঝাঁঝ নিয়ে ফিরে এলো সবার কাছে |

Bangaleer Jhaaj - Emami Healthy and Teasty New Commercial Launched 2
Bangaleer Jhaaj – Emami Healthy and Teasty New Commercial Launched 2

এবার ফেরা যাক আলোচনা তে  বিষয় ঝখন বাঙালীর ঝাঁঝ আর তখন চায়ের কাপে তুফান উঠবেই এ নিশ্চিত করে বলা যায় |আর এখানেই মধুবন্তী মৈত্রের উজ্জ্বল উপস্হিতি সঞ্চালক হিসাবে |

প্রশ্ন উঠলো “খাঁটি বাঙালী আছে কি” সৌমিত্র বাবু সভাব সিদ্ধ ভাবে বললেন “কোন জাত টা খাঁটি আছে ?” | বেনু দা বললেন “বাঙালী খাঁটি আছে, তবে পরিবর্তন কেও জুড়ে নিতে হয় সময়ের সাথে সাথে”| চুর্নী কিন্তু বিশ্বাস করেন বাঙালী খাঁটি আছেন তাঁর ঝাঁঝে |

প্রশ্ন উঠলো “তেল তো খাঁটি পাওয়া গেল কিন্তু মা,ঠাকুমার মত সাবেকি বাঙালী রান্নার হাত কি আগামী দিনে থাকবে ?”|

উত্তর দিলেন বেনুদা “বাঙালী, বাঙালী রান্না খোঁজে সে পৃথিবীর যেখানেই যাক| আমরা আমেরিকা তে যত নেমত্তন্ন পেয়েছি সব কটি খাঁটি বাঙালী রান্না এবং নিঃসন্দেহে সুস্বাদু রান্না| আমার বাড়িতে স্ত্রী ও রান্নার লোক মিলে রোজ বাঙালী ভোজ করায়| তবে স্বাদ বদলের জন্য মাঝে মধ্যে চাইনিস,কন্টিনেন্টাল চললেও বাইরের খাবার খুব বেশি খাওয়া হয়না “|

চুর্নী বললেন “বাড়ির লোকেদের ফরমাইশ থাকে বাইরের খাবাবের তবে তিনি বাঙালী রান্না ভালবাসেন “|

সৌমিত্রদা স্ট্রেট ব্যাটে বলে দিলেন “চা ছাড়া নিজে কিছু রান্না জানিনা বাপু, তবে ছোট মাছ, বড় মাছ আর যত ভালো রান্না আছে তাঁর তিনি ভক্ত “|আড়, বোয়াল,ইলিশ ,চিংড়ির মালাইকারী সকলেরই প্রিয় |

কিন্তু এর কোনটাই সঠিক ভাবে উপভোগ করা যায় না যদি সর্ষের তেল না খাঁটি হয় আর এখানেই ইমামির “হেলদি এন্ড টেস্টি” সর্ষের তেলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে | 

পরিশেষে ছিল বাঙালীর ঝালমুড়ি এবং অবশ্যই ইমামির “হেলদি এন্ড টেস্টি” সর্ষের তেলের সেই বাঙালী ঝাঁঝ | ঝাল মুড়ি খেয়ে ডাবল ফেলুদা সহ সকলে ডাবল খুশি|