সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন পৃথিবীর কোনও শক্তিই ভারত থেকে আমাদের তাড়াতে পারবে না

0
1154
Siddiqulla Choudhury on NRC
Siddiqulla Choudhury on NRC

সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন পৃথিবীর কোনও শক্তিই ভারত থেকে আমাদের তাড়াতে পারবে না

এম এ হাকিম

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী ও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের রাজ্য সভাপতি মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘পৃথিবীর কোনও শক্তিই ভারত থেকে আমাদের তাড়াতে পারবে না।’ তিনি আজ (সোমবার) পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতার মহাজাতি সদনে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের এক সমাবেশে ওই মন্তব্য করেন।

অসমে নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে উদ্ভূত সমস্যা সম্পর্কে ওই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এনআরসি খসড়ায় ৪০ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়ায় মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী এদিন গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী তার ভাষণে বলেন, ‘জন্ম সূত্রে আমরা ভারতীয়, পৈতৃক সূত্রে আমরা ভারতীয় এবং উত্তরাধিকার সূত্রে আমরা ভারতীয় আছি এবং ইনশাআল্লাহ থাকবই, থাকব। পৃথিবীর কোনো শক্তি আমাদের তাড়াতে পারবে না।’

তিনি কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপি’র উদ্দেশ্যে তীব্র সমালোচনায় সোচ্চার হয়ে বলেন, ‘দেশকে বিচ্ছিন্নতাবাদের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে, হিংসার মুখে ঠেলে দিচ্ছে। ওরা আগুন নিয়ে খেলা করছেন। ওই খেলা আমরা করতে দেবো না। আমাদের অবদানের বলেই তো দেশ স্বাধীন হয়েছে!’

বাংলায় পরিবর্তনের (রাজনৈতিক পালাবদল) জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূলের অবদানের পাশপাশি জমিয়তের উজ্জ্বল ভূমিকার কথা উল্লেখ করে সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের গায়ে আন্দোলনের রক্ত আছে। বিজেপি-আরএসএসের ভয়ে আমরা গুটিয়ে যাব, ওরকম বদরক্ত আমাদের গায়ে নেই। আমরা বুক চিতিয়ে লড়াই করতে পারি।’

তিনি বলেন, ‘বাংলার মাটি, ভালোবাসার মাটি, সম্প্রীতি, সৌহার্দের মাটি, ভ্রাতৃত্ব বন্ধনের মাটি। এখানে হিংসার কোনো স্থান নেই।’

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘বাবরী মসজিদ ভাঙার পরে পৃথিবীর সামনে বিজেপির মুখ পুড়েছে, গুজরাটের দাঙ্গায় মুখ পুড়েছে। নোট বাতিলের মধ্য দিয়ে মুখ পুড়েছে, কে গরুর গোশত খাবে কী খাবে না এতে মুখ পুড়েছে।  একইভাবে নাগরিকত্ব ইস্যুতেও বিজেপি’র মুখ পুড়বে।’

জাতীয় নাগরিকপঞ্জি থেকে ৪০ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়ায় পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী ও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের রাজ্য সভাপতি মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বললেন, বিজেপি সরকার যা করছেন তা আমরা মেনে নেব না।

অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) থেকে যেসব বৈধ ভারতীয়দের না বাদ গেছে তিনি তাদেরকে নিয়ম সরলীকরণের মধ্যদিয়ে এনআরসিতে অন্তর্ভুক্ত করাসহ পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘একথা বিজেপিদের মনে রাখা প্রয়োজন, ‘ভারতবাসীরা বিজেপি’র দয়ায় বসবাস করে না। এখানে কোনো ধর্ম, বর্ণের বিষয় নয়। আমরা কারো দয়ায় বাস করি না। কিসের ভয় দেখান? এটা আমাদের দেশ।’

তিনি অসমে নাগরিকত্ব ইস্যুতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ভূমিকা ও পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে তার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

অসমে নাগরিকপঞ্জিতে ৪০ লাখ লোকের নাম বাদ যাওয়া প্রসঙ্গে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম তার ভাষণে বলেন, ‘আমরা দুঃখিত যে,  ছয়/সাত দশক পার হয়ে যাওয়ার পরে, স্বাধীনতার সত্তর বছর পার হয়ে যাওয়ার পরেও দেশবাসী ভুগছে। নাগরিকপঞ্জি নিয়ে কেন এত সমস্যা?’ যে চল্লিশ লাখ মানুষের নাম বাদ গেছে তাদের হৃদয় মুচড়ে যাবে, তারা অজানা আশঙ্কায় ভুগবে বলেও মুফতি আব্দুস সালাম বলেন।

রাজ্য জমিয়ত প্রধান মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী ও মুফতি আব্দুস সালাম অসম ইস্যুতে কোনো নাগরিক যাতে সুবিচার থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য সকলকে সজাগ ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

সংগ্রাহক : ফারুক আহমেদ