বহরমপুর চালতিয়া রোডে ‘নবচেতনা’ মুর্শিদাবাদ জেলা অফিস উদ্বোধন করলেন ফারুক আহমেদ

0
1051
Nabachetana Murshidabad office inauguration
Nabachetana Murshidabad office inauguration

বহরমপুর চালতিয়া রোডে ‘নবচেতনা’ মুর্শিদাবাদ জেলা অফিস উদ্বোধন করলেন ফারুক আহমেদ
 
বিশেষ প্রতিবেদক

আজ ২৬ আগস্ট রবিবার বেলা ২ টোর সময় ‘নবচেতনা’র মুর্শিদাবাদ জেলা অফিস উদ্বোধন উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।
বহরমপুর চালতিয়া রোডে ‘নবচেতনা’ মুর্শিদাবাদ জেলা অফিস উদ্বোধন করলেন ‘নবচেতনা’র কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক তথা কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের দূরশিক্ষা বিভাগের সহ অধিকর্তা এবং উদার আকাশ পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদ।
উপস্থিত ছিলেন
মুর্শিদাবাদ জেলা কমিটির সমস্ত সদস্যবৃন্দ।
মফিকুল ইসলাম (সহ সভাপতি), মোস্তফা কামাল  (সহ সভাপতি), নূরুন্নবী বিশ্বাস (সহ সভাপতি ),সামশুল আলম (সহ সভাপতি), মনোয়াজ বিশ্বাস (সহ সভাপতি),জিনাত রেহেনা ইসলাম (সহ সভাপতি), হাতেমুল ইসলাম (সহ সভাপতি), আজাদ মহলদার (সহ সভাপতি), আবদুর রশীদ সেখ (সহ সভাপতি),আলতামাস কবীর (সহ সভাপতি),
মহবুব আলম (যুগ্ম সম্পাদক), মোহাম্মদ সেলিম  (যুগ্ম সম্পাদক), হাসিবুর রহমান (সহ সম্পাদক), আহাদুল ইসলাম (সহ সম্পাদক), সুজাউদ্দিন বিশ্বাস (সহ সম্পাদক), মোমিনুল হক (সহ সম্পাদক), আব্দুল হামিদ (সহ সম্পাদক), গোলাম মোর্তোজা (সহ সম্পাদক), আলী মেহবুব হাসান (সহ সম্পাদক), মো: বাগবুল ইসলাম (সহ সম্পাদক), ডা: আবুল হাসনাত (সহ সম্পাদক), মিজানুর রহমান (সহ সম্পাদক), গোলাম কিবরিয়া (সহ সম্পাদক), কিবরিয়া আনসারী (সহ সম্পাদক),রাসেল বিশ্বাস (সহ সম্পাদক), একরামুল হক (সহ সম্পাদক), হুমায়ুন কবীর (সহ সম্পাদক), বজলুর রহমান (সহ সম্পাদক), আব্দুল আজিজ  (সহ সম্পাদক), দিলরুবা সরকার (সহ সম্পাদক), মো: নুর জামাল সেখ (সংগঠক), মো: নিজামুদ্দিন সেখ (সংগঠক), মো: সানাউল্লাহ বিশ্বাস (সংগঠক),রেজাউল মণ্ডল (সংগঠক),
বিল্লাল মণ্ডল(সংগঠক), রণি বিশ্বাস (সংগঠক), হাসানুজ্জামান (সংগঠক),
রাজা মেহেদী হাসান (সংগঠক), নূরজাহান বেগম  (সংগঠক), আমিনা খাতুন  (সংগঠক), ফারহাদ হোসেন  (কোষাধ্যক্ষ), মিজানুর রহমান (জেলা পর্যবেক্ষক) আহাদুল ইসলাম, সাবির চাঁদ, মোঃ জীম নওয়াজ, আসরাফুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, মোস্তাকিন শেখ, রাজীব হোসেন, মোঃ আলামীন, রৌশনা বিবি, বেল্লাল মন্ডল সহ অনেকেই তাদের মূল্যবান বক্তব্য তুলে ধরলেন।

‘নবচেতনা’র প্রতিষ্ঠাকারী তথা রাজ্য সভাপতি সম্মানীয় ড.হুমায়ুন কবীর সাহেব ও ‘নবচেতনা’র আহ্বায়ক ফারুক আহমেদের উপস্থিতিতে বিগত ১৯ আগস্ট রবিবার বহরমপুরে নবচেতনার মুর্শিদাবাদ জেলা কমিটি গঠিত হয়েছিল। ওই মিটিং সমাবেশে ঘোষণা অনুযায়ী আজ ২৬ আগস্ট রবিবার বেলা ২ টোর সময় প্রথম জেলা কমিটির গুরুত্ব পূর্ণ সভাও অনুষ্ঠিত হল ‘নবচেতনা’র নতুন জেলা অফিসে।

সভায় সকল জেলা কমিটি উপস্থিতিতে ‘নবচেতনা’র আহ্বায়ক ফারুক আহমেদ নবচেতনার নতুন মুর্শিদাবাদ জেলা অফিস উদ্বোধন করলেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মুর্শিদাবাদ জেলার সাংবাদিক ও নবচেতনার সকল জেলা কমিটির সদস্যরা উপস্থিত হয়েছিলেন নবচেতনার শুভ প্রয়াস সফল করতে।

নবচেতনার মুর্শিদাবাদ জেলা অফিসের ঠিকানা: নবচেতনা,
ভাকুড়ী (রেল গেট), চালতিয়া রোড, বহরমপুর, মুর্শিদাবাদ।

ড. হুমায়ুন কবীর সাহেব
“নবচেতনা প্লাটফর্ম সৃষ্টির উদ্দেশ্যগুলি তুলে ধরেছিলেন গত রবিবার।

১. মুসলিম যুব সম্প্রদায় ও সার্বিকভাবে মুসলিম সমাজের মধ্যে শিক্ষার উন্নয়ন ঘটানো। আমরা ধর্মীয় শিক্ষার বিরুদ্ধে নয়,বরং যুব সমাজের মধ্যে শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য এর অপরিহার্যতা আমরা স্বীকার করি। কিন্তু মুসলিমদের সামাজিক ক্ষেত্রে ও ব্যক্তিজীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিভিত্তিক শিক্ষা ব্যবস্থা। আমাদের এই প্লাটফর্মের উদ্দেশ্য হল মুসলিম ছাত্র/যুব সম্প্রদায়কে সেই লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা ও উদ্বুদ্ধ করা।

২. লক্ষ্য করা গেছে যে পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম সমাজের একাংশ বিভিন্ন ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক অপরাধ, বিভিন্ন বে আইনি কাজের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। তাদের এই সব মন্দ ক্ষেত্র থেকে বিরত রাখার আপ্রাণ প্রচেষ্টা করা।

৩. আরো দেখা যাচ্ছে যে, মুসলিমরা ভবিষ্যত বিষময় ফলাফলের কথা চিন্তা না করেই ব্যাপকভাবে বিভিন্ন রাজনৈতিক ক্রিয়াকলাপ, রাজনৈতিক হানাহানি এবং অন্য অনেক অবৈধ কাজে নিজেদের জড়িয়ে ফেলছে। মুসলিম সমাজে এর ফল হচ্ছে মারাত্মক। অনেক মুসলিম এতে প্রাণ হারাচ্ছে, অনেকে আহত হচ্ছে, আবার অনেকেই মামলা-মোকদ্দমায় জড়িয়ে যাচ্ছে, যার প্রত্যক্ষ কুফল সেই মুসলিম পরিবারগুলিকে এবং সার্বিকভাবে মুসলিম সমাজকে ভুগতে হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করবো তাদের এই খারাপ পথ ও পন্থাগুলির কুফল সম্পর্কে বুঝিয়ে সুপথে ফিরিয়ে আনতে।

৪. আমরা আন্তরিকভাবে মুসলিম যুবসমাজের জীবনের মানোন্নয়নের প্রচেষ্টা চালাবো।

৫.আমরা কঠোরভাবে নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি বজায় রেখে এবং অন্য সমস্ত জাতি,ধর্ম,বর্ণের সব মানুষের প্রতি শ্রদ্ধা বজায় রেখে সহনশীলতার মহান আদর্শ বজায় রাখবো।

৬. আমরা কখনো কারো প্রতি ধর্মীয় বা সাম্প্রদায়িক একদেশদর্শীতা দেখাবো না।

৭. এককথায়, আমরা কখনোই সমাজের কারো প্রতি খারাপ মনোভাব পোষণ করবো না।

৮. আমাদের লক্ষ্য হবে প্রতিদ্বন্দ্বিতাময় সমাজে টিকে থাকার পথ অনুসন্ধান,অনুসরণ এবং সরকারি ক্ষেত্রে যে সব সুযোগ সুবিধা আছে সেগুলি সম্বন্ধে কওমের সকলকে সচেতন করা।

৯. আমরা চেষ্টা করবো ক্রমবর্ধমান অসহিষ্ণুতা ও সাম্প্রদায়িক আগ্রাসন থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখার।

১০. আমাদের এই প্লাটফর্ম আমাদের সম্প্রদায়ের মানুষকে সময় সময় দেশের উন্নয়নের ও অগ্রগতির হালহকিকত সম্পর্কে অবগত করে এবং এ বিষয়ে আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের এগিয়ে যাবার পন্থা অনুসন্ধান করবে।

১১. সমস্ত ধরণের মুসলিম সংগঠন, সে শিক্ষা, সমাজ, ধর্মীয় বা ধর্মনিরপেক্ষ যে কোনো ধরণের ই হোক না কেন, তাদের সঙ্গে যোগসুত্র গড়ে তোলা।

আমাদের লক্ষ্য হবে বেশি সংখ্যক মুসলিম সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানো।

যদি আমরা সকলে ঐক্যমত হই এবং কাজ করি, তাহলে ভবিষ্যতে সমাজের এই দুর্বল শ্রেনীর কাছে পৌঁছে তাদের তুলে আনতে পারবো।
মুসলিমদের বঞ্চনার বিরুদ্ধে এবং মুসলিম সমাজের উন্নয়নের জন্য আমরা এমন একটি প্লাটফর্মের প্রয়োজনীতা অনুভব করেছি যাতে আমরা এই সমাজের উন্নয়নের জন্য আমাদের দাবী-দাওয়া সমন্বিত জোরালো আওয়াজ তুলতে পারি। কিন্তু আমাদের সদস্যদের সদা সতর্ক ও সাবধান থাকতে হবে যে আমরা অন্য সম্প্রদায়ের মানুষের প্রতি যেন কোনোরূপ ঘৃণা বা বিদ্বেষ পোষণ না করে ফেলি। সকলের প্রতি আমাদের বিনম্র ও শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। আর অন্য যে বিষয়টি আমাদের বিশেষভাবে মনে রাখতে হবে তা হল, আমরা দেশের আইন কে মর্যাদা ও সতর্কতার সঙ্গে মেনে চলবো।
আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণে আমরা বিনীত ও বিনম্রভাবে এগিয়ে যাবো। এই বিনীত-বিনম্র কিন্তু দৃঢ় পদক্ষেপই আমাদের সাফল্য লাভের পথ হয়ে উঠবে।

সকলকে ধন্যবাদ সহ ড.হুমায়ুন কবীর।

নবচেতনার আহ্বায়ক ফারুক আহমেদ সংযোজন এই মুহূর্তে বাংলার ২৩ টি জেলায় “নবচেতনা” মানুষের কল্যাণে যে সব বিষয় নিয়ে কাজ করবে।

১. ল সেল (আইনি সহায়তা দান)।

২. মেডিক্যাল সেল (চিকিৎসা সহায়তা দান)।

৩. শিক্ষা সেল (আধুনিক শিক্ষার প্রসার ঘটাতে সহায়তা)।

৪. কেরিয়ার কাউনসেলিং সেল (চাকরি পাওয়ার জন্য বা জীবিকায় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য সুপরামর্শ দিয়ে সহায়তা)।

৫. সোশাল জাস্টিস সেল (সামাজিক ন্যায়বিচার পেতে সহায়তা)।

৬. প্রোপাগান্ডা সেল (মত ও নীতি প্রচার সেল) ইত্যাদি।
সদস্যদের কাছে আমাদের উদ্দেশ্য  চুড়ান্ত করার আগে মতামত আহ্বান করা হচ্ছে।