এক দেশ এক নির্বাচন

0
615
Election
Election

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী সর্বদলীয় বৈঠকে “এক দেশ এক নির্বাচন” প্রক্রিয়া পরযালোচনার জন্য কমিটি গঠন করবেন

By PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৯শে মে,২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ একটি সর্বদলীয় বৈঠকের পৌরহিত্য করেন। লোকসভায় যে সব দলের নির্বাচিত সাংসদরা রয়েছেন, সেই দলগুলির প্রতিনিধিরা এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। আজকের বৈঠকে ২১টি দলের সভাপতিরা  ছিলেন।

আজকের বৈঠকে যে বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা হয়েছেঃ

ʘ সংসদের কর্মকুশলতা বাড়ানোর পদ্ধতি

ʘ এক দেশ এক নির্বাচন

ʘ স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তিতে নতুন ভারত গঠন

ʘ মহাত্মা গান্ধীর সার্ধ জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচী

ʘ উচ্চাকাঙ্ক্ষী জেলার উন্নয়ন

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এই বৈঠক পরিচালনা করেন। এই বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ বিয়য়গুলিতে তাঁদের মতামত জানতে চাইবার জন্য বিভিন্ন দলের সভাপতিরা প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন।

সংসদের অধিবেশন চলার সময় মুলতুবি  হয়ে যাওয়া এবং  কাজকর্মে ঘনঘন ব্যাঘাত ঘটানোর বিষয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সভাপতিরা উদ্বেগ প্রকাশ করেন।  সংসদের কর্মকুশলতায় এর ফলে প্রভাব পড়ে। সদস্যরা সেই দিনের আলোচিত বিভিন্ন ইস্যুতে তাঁদের মতামত জানানোর সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন। এ কারণে সংসদে আলাপ আলোচনার  পরিবেশ থাকার বিষয়ে তাঁরা গুরুত্ব দেন। বৈঠকে অংশগ্রহণকারীরা আশা প্রকাশ করেন, যেহেতু সপ্তদশ লোকসভার প্রায় অর্ধেক সদস্যই নবনির্বাচিত, তাই তাঁরা সংসদে গঠনমূলক আলোচনার সুযোগগুলি ব্যবহার করবেন।

এক দেশ এক নির্বাচন প্রসঙ্গে অনেক দলের সভাপতিরা একসঙ্গে বিভিন্ন নির্বাচন পরিচালনার বিষয়টিকে সমর্থন করেন। এই প্রস্তাবটি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করার বিষয়ে অনেক দল মত প্রকাশ করে। শ্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, এটি একটি নির্দিষ্ট দলের কর্মসূচী নয়। দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়ে সব দলের মতামত গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা হবে। ‘এক দেশ এক নির্বাচন’-এর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী একটি কমিটি গঠন করবেন। এই কমিটি নির্দিষ্ট সময়ে তার পরামর্শ জানাবে।  

বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দ মহাত্মা গান্ধীর জীবন দর্শন সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জানানোর উপর মতপ্রকাশ করেন। গান্ধীজীর সার্ধ জন্ম শতবার্ষিকী উৎযাপনের পরিসরে এটি প্রাসঙ্গিক বলে তাঁরা মত প্রকাশ করেন। এই উপলক্ষে দেশের উন্নয়নের জন্য কিছু বিষয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ হওয়া উচিৎ বলে তাঁরা মনে করেন এবং ২০২২ সালে, স্বাধীনতার ৭৫ বর্ষ পূর্তির মধ্যে  সেগুলি পূরণের উপর তাঁরা জোর দেন।

উচ্চাকাঙ্ক্ষী জেলাগুলির উন্নয়নে সব দলগুলি গঠনমূলক মতামতের সঙ্গে নানা পরামর্শও দিয়েছে। শ্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, বিভিন্ন রাজ্যের পিছিয়ে পড়া জেলাগুলিকে উন্নত জেলাগুলির সমকক্ষ করে তুলতে সব রাজ্যের সরকারকে কেন্দ্রের সঙ্গে একযোগে কাজ করতে হবে। এর মাধ্যমেই ২০২২ সালের মধ্যে ‘নতুন ভারত ‘ গঠন করা সম্ভব হবে।  

প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন দলের সভাপতিদের আজকের বৈঠকে যোগ দেওয়া এবং গঠনমূলক পরামর্শ জানানোর জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন দেশের প্রগতি এবং সমৃদ্ধির জন্য আগামী কয়েকবছর ঐতিহাসিক সুযোগ এনে দিয়েছে।  

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ্‌, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক এবং অতিক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোগ মন্ত্রী শ্রী নিতিন গড়কড়ি, কৃষি ও কৃষককল্যাণ এবং গ্রামোন্নয়ন ও পঞ্চায়েতিরাজ মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমর, সামাজিক ন্যায় ও ক্ষমতায়ন মন্ত্রী . শ্রী থাওয়ার চাঁদ গেহলট, সংসদ বিষয়ক এবং কয়লা ও খনি মন্ত্রী শ্রী প্রলহাদ যোশি অন্যান্যদের সঙ্গে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।