৩১শে মে পর্যন্ত বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ

0
1015
Relief Work During COVID-19
Relief Work During COVID-19

৩১শে মে পর্যন্ত বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ

By PIB Kolkata
নতুন দিল্লি, ১৭ই মে, ২০২০
২০০৫ সালে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন অনুযায়ী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, আজ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ৩১শে মে পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। কোভিড – ১৯ এ সংক্রমণ আটকাতে ২৫শে মার্চ থেকে লকডাউন জারি করা হয়।
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী, স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্ধারিত বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করে, রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি রেড, অরেঞ্জ এবং গ্রীণ জোন চিহ্নিত করতে পারবে। এই জোনগুলি একটি পুরো জেলা বা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন (পুরসভা) অথবা মহকুমার মতো ছোট প্রশাসনিক ক্ষেত্রেও হতে পারে। রেড এবং অরেঞ্জ জোনে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকা অনুযায়ী জেলা প্রশাসন অথবা স্থানীয় প্রশাসনগুলি কনটেন্টমেন্ট জোন এবং বাফার জোন চিহ্নিত করতে পারবে। কনটেনমেন্ট জোনে বিধিনিষেধ কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। এখানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহ বা জরুরীভিত্তিতে চিকিৎসা পরিষেবা ছাড়া লোক চলাচল করতে পারবে না। বাফার জোনগুলি হল – প্রতিটি কনটেনমেন্ট জোনের আসেপাশের এলাকা। বাফার জোনে নতুন সংক্রমণ ঘটার সম্ভবনা থাকলে সেখানে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
দেশজুড়ে বিভিন্ন কাজকর্মের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অনুমতি ছাড়া নিরাপত্তা কর্মীরা, এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারবেন না। অন্তদেশীয় এবং আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহণ বন্ধ থাকবে। তবে, অন্তদেশীয় চিকিৎসা পরিষেবার জন্য বিমান ও এয়ার অ্যাম্বুলেন্স চলাচল করবে। মেট্রোরেল পরিষেবা, স্কুল, কলেজ সহ সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হোটেল রেস্তোরাঁ, সিনেমা হল, শপিংমল, জিমনাসিয়াম, বিনোদন পার্ক বন্ধ থাকবে। বাসস্ট্যান্ড, রেল স্টেশন ও বিমানবন্দরের মধ্যে ক্যান্টিন অবশ্য খোলা থাকবে। সামাজিক, রাজনৈতিক, সংস্কৃতিক, যে কোনো অনুষ্ঠানে ও ধর্মীয়স্থানে জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে, অনলাইনে লেখাপড়া করার ক্ষেত্রে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। রেস্তোরাঁগুলি শুধুমাত্র হোমডেলিভারি করতে পারবে। খেলার স্টেডিয়ামে খেলাধূলা করা যাবে, তবে কোনো দর্শক থাকতে পারবেন না।
যাত্রী সাধারণের যাতায়াতের জন্য বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারতে যে সমস্ত বিদেশী নাগরিকরা আটকে আছেন, বিদেশে যে সমস্ত ভারতীয়রা আটকে আছেন, জাহাজে যে সমস্ত নাবিক ও জাহাজকর্মীরা আসা – যাওয়া করছেন এবং এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্য ও রাজ্যের অভ্যন্তরে আটকে থাকা মানুষদের নিয়ে যাবার জন্য বাস এবং ট্রেন চলাচলকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্য যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির মধ্যে এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে ঐক্যমতে পৌঁছতে হবে।
কোভিড – ১৯ এর ব্যবস্থাপনায় জনসাধারণের জন্য জায়গা এবং কাজের জায়গায় মাস্ক পরে থাকা বাদ্ধতামূলক, যেখানে – সেখানে থুতু ফেললে, সংশ্লিষ্ট রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের নিয়ম অনুযায়ী জরিমানা ধার্য করা এবং শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিবাহ অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি অতিথি থাকা যাবে না। শবযাত্রায় এবং শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ ২০জন থাকতে পারেন। সর্বসাধারণের জন্য নির্ধারিত জায়গায় মদ্যপান, পান, গুটখা চিবানো এবং ধূমপান করা নিষিদ্ধ।
বাড়ি থেকে যতটা সম্ভব কাজের সুযোগ দিতে হবে। সমস্ত কাজের জায়গায় কাজের সময় মেনে চলতে হবে। সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্তস্থানে থার্মাল স্ক্রিনিং, হাত ধোওয়া এবং স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা থাকতে হবে। কাজের জায়গায়, শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে এবং বিভিন্ন শিফটের ব্যবস্থা করতে হবে।
দোকান এবং বাজার খোলার বিষয়ে কর্তৃপক্ষ সময় ঠিক করে দেবেন। সব দোকানে খরিদ্দারদের ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কোথাও যেন ৫ জনের বেশি লোক না দাঁড়ান।
প্রতিদিন সন্ধ্যে ৭ থেকে সকাল ৭ টা পর্যন্ত নৈশকালীন কারফিউ বলবৎ থাকবে। এই সময় খুব প্রয়োজন না হলে, কেউ বাড়ি থেকে বেরোবেন না।
যাদের বয়স ৬৫-র বেশি, যারা জটিল রোগে আক্রান্ত, গর্ভবতী মহিলা এবং ১০ বছরের কমবয়সী শিশুদের জরুরী কোনো কারণ ছাড়া বাড়ি থেকে বেরোতে পারবেন না।
রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিভিন্ন এলাকায় প্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারেন।
কেন্দ্র, কোভিড – ১৯ এ সংক্রমিত ব্যক্তিদের দ্রুত শনাক্তকরণের জন্য আরোগ্য সেতু মোবাইল অ্যাপটি চালু করেছে। বিভিন্ন দপ্তরে এবং কাজের জায়গায় কর্মচারীরা যেন এই অ্যাপ তাঁদের মোবাইলে ইনস্টল করেন, সেটি নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। সকলে যেন এই অ্যাপটি ব্যবহার করেন, সেবিষয়ে উদ্যোগী হতে জেলাকর্তৃপক্ষগুলিকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
২০০৫ সালের বিপর্যয় মোকাবিলা আইন অনুযায়ী লকডাউনের সব নিয়ম যেন মেনে চলা হয়, রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here