১০ হাজার কৃষক উৎপাদক সংগঠন গঠন ও তার প্রসার কর্মসূচির আওতায় মধু উৎপাদক সংগঠন গড়ে তোলার সূচনা

0
290
Queen Bee
Queen Bee

১০ হাজার কৃষক উৎপাদক সংগঠন গঠন ও তার প্রসার কর্মসূচির আওতায় মধু উৎপাদক সংগঠন গড়ে তোলার সূচনা

পসেইডন: 26 NOV 2020 3:46PM by PIB Kolkataনয়াদিল্লি, ২৬ নভেম্বর, ২০২০  জাতীয় কৃষি সমবায় বিপণন ফেডারেশন বা নাফেড – এর মধু উৎপাদক সংগঠন গড়ে তোলার কর্মসূচির আজ সূচনা করেছেন কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। নবগঠিত মধু উৎপাদক সংগঠন, কৃষক এবং কৃষক উৎপাদক সংগঠনগুলির প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে অনলাইনে এই কর্মসূচির সূচনা হয়। 

মধু উৎপাদক সংগঠন গঠন কর্মসূচির সূচনা করে শ্রী তোমর বলেন, গ্রামীণ ও আদিবাসী মানুষের মধ্যে অসংগঠিত ক্ষেত্রে মৌমাছি প্রতিপালন ও মধু উৎপাদনে দেশে ব্যাপক সম্ভবনা রয়েছে। বিপুল পরিমাণ মধু উৎপাদনের সম্ভাবনা ও সুযোগ সত্ত্বেও মৌ প্রতিপালন ক্ষেত্র এখনও অনুন্নত তালিকায় রয়ে গেছে। বিভিন্ন সমস্যা ও বাধা-বিপত্তির দরুণ মৌ প্রতিপালন ক্ষেত্রের গ্রহণযোগ্যতা ও স্বীকৃতি তুলনামূলক কম। মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করে নাফেড এই সমস্যাগুলি দূরীকরণে চেষ্টা করবে এবং মৌ প্রতিপালন ক্ষেত্রে সরবরাহ-শৃঙ্খলে যে ঘাটতি রয়েছে, তা মেটাবে।

এর ফলে, মৌ প্রতিপালকরা আরও বেশি লাভবান হবেন। মধু উৎপাদক সংগঠনগুলির মাধ্যমে নাফেড কর্মহীন মহিলা ও আদিবাসী মানুষের পেশা হিসাবে মৌ প্রতিপালন ক্ষেত্রের প্রসারে সাহায্য করে তাঁদের জীবনযাপনের মানোন্নয়ন ঘটাবে। শ্রী তোমর আরও বলেন, মৌ প্রতিপালন ও মধু উৎপাদন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের জীবনশৈলীতে পরিবার্তন আনবে। পক্ষান্তরে, তাঁদের আয় বাড়বে। 

কেন্দ্রীয় সরকার দেশে কৃষি ক্ষেত্রে সংস্কারগুলি বাস্তবায়িত করতে কৃষক উৎপাদক সংগঠন গঠনে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এই সংগঠনগুলি কৃষি ক্ষেত্রের সংস্কারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে। তাই, কৃষিকে আত্মনির্ভর কৃষিতে পরিণত করার লক্ষ্যে কৃষক উৎপাদক সংগঠন গঠন ও তার প্রসার প্রাথমিক পদক্ষেপ। এই লক্ষ্যেই সরকার ১০ হাজার কৃষক উৎপাদক সংগঠন ও তার প্রসারে কেন্দ্রীয় স্তরের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বলেও শ্রী তোমর জানান।