ভারতের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে কামধেনু চেয়ার প্রতিষ্ঠিত করা হবে- কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রী সঞ্জয় ধোতরে

0
239
Indian Cow
Indian Cow

ভারতের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে কামধেনু চেয়ার প্রতিষ্ঠিত করা হবে- কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রী সঞ্জয় ধোতরে

By PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০

    ইউজিসি, এআইসিটিই এবং এআইইউ-এর সহযোগিতায় রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ ‘কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে কামধেনু চেয়ার’ প্রতিষ্ঠার বিষয়ে  একটি জাতীয় ওয়েবিনারের আয়োজন করেছে।এই ওয়েবিনারে রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান ডঃ বল্লভভাই কাঠারিয়া দেশের সমস্ত কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালগুলিতে কামধেনু চেয়ার চালু করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য এবং কলেজের প্রধানদের কাছে আবেদন জানান । ডঃ কাঠারিয়া বলেছেন, আমাদের দেশের যুবদের কৃষি, স্বাস্থ্য, সমাজ অর্থনীতি এবং পরিবেশে দেশী গরুর গুরুত্ব সম্পর্কে শিক্ষা দেওয়া প্রয়োজন। বর্তমানে সরকার গরু এবং পঞ্জগভ্যের গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছে। আধুনিক বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির সাহায্যে এ বিষয়ে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির ওপর গবেষণা চালিয়ে যাওয়া উচিত বলেও তিনি জানিয়েছেন।

    ভারত সরকারের শিক্ষা মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রী সঞ্জয় ধোতরে কামধেনু চেয়ার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আমাদের সমাজে গরুর যথেষ্ঠ গুরুত্ব রয়েছে। সমাজের কল্যাণে এর গুরুত্ব অপরিসীম। তিনি এ বিষয়ে অগ্রসর হওয়ার এবং এই উদ্যোগকে সমর্থন জানানোর আহ্বান জানান। শ্রী ধোতরে বলেন, কয়েকটি কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় কামধেনু চেয়ার প্রতিষ্ঠা হলে পরবর্তী সময়ে অন্যান্য কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় তা অনুসরণ করবে। ডঃ বল্লভভাই কাঠারিয়ার এই ঐতিহাসিক উদ্যোগ ও নেতৃত্বের উচ্ছ্বসিত প্রশংসাও করেছেন শ্রী ধোতরে। 

    এআইসিটিই-র চেয়ারম্যান অধ্যাপক অনিল সহস্রবুদ্ধে বলেন, আত্মনির্ভর গ্রাম গঠনের মধ্যে দিয়েই আত্মনির্ভর ভারত গঠন সম্ভব। পুরনো জ্ঞান এবং নতুন প্রযুক্তির মধ্যে সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমেই নতুন ও উজ্জ্বল ভারত গড়ে তোলা সম্ভবপর বলেও তিনি জানিয়েছেন। গরুর মাধ্যমে কৃষি ভিত্তিক অর্থনীতির অগ্রগতি একটি বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিভঙ্গী রয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। ডঃ কাঠারিয়ার আবেদন অনুযায়ী কামধেনু গবেষণা কেন্দ্র,  কামধেনু স্টাডি সেন্টার এবং কামধেনু উৎকর্ষতা কেন্দ্র ও কামধেনু বিশ্ববিদ্যালয় গঠনের বিষয়েও ভাবনা-চিন্তা করা উচিত বলেও তিনি জানান।

    ইউজিসি-র সচিব অধ্যাপক রজনীশ জৈন ডঃ কাঠারিয়ার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং তিনি বলেন, কামধেনু চেয়ার প্রতিষ্ঠার জন্য ইউজিসি পূর্ণ সহযোগিতা প্রদান করবে। এআইইউ-এর সাধারণ সচিব ডঃ পঙ্কজ মিত্তল বলেন, এই উদ্যোগে পূর্ণ সমর্থন জানানো হবে।এদিনের অধিবেশনে একাধিক বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগত উপাচার্যরা রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। অনুষ্ঠানের সমাপ্তিতে ডঃ কাঠারিয়া বলেন, গরুর বিভিন্ন দিক নিয়ে যেখানে কাজ করার সুযোগ-সুবিধা রয়েছে সেখানে রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে তুলে যথাযথভাবে সহযোগিতা প্রদান করবে।