দেশের ওয়াকফ সম্পত্তিগুলিকে জিও ট্যাগিং এবং ডিজিটাল পদ্ধতিতে যুক্ত করার কর্মসূচির সূচনা হয়েছে : শ্রী নাকভি

0
162
The Union Minister for Minority Affairs, Shri Mukhtar Abbas Naqvi chairing a meeting, in New Delhi on June 04, 2019. The Minister of State for Youth Affairs & Sports (Independent Charge) and Minority Affairs, Shri Kiren Rijiju is also seen.
The Union Minister for Minority Affairs, Shri Mukhtar Abbas Naqvi chairing a meeting, in New Delhi on June 04, 2019. The Minister of State for Youth Affairs & Sports (Independent Charge) and Minority Affairs, Shri Kiren Rijiju is also seen.

দেশের ওয়াকফ সম্পত্তিগুলিকে জিও ট্যাগিং এবং ডিজিটাল পদ্ধতিতে যুক্ত করার কর্মসূচির সূচনা হয়েছে : শ্রী নাকভি

By PIB Kolkata

সমাজের কল্যাণে ওয়াকফ সম্পত্তিগুলিকে যথাযথভাবে ব্যবহার করার উদ্দেশ্যে এই ধরনের সম্পত্তিগুলির ১০০ শতাংশ জিও ট্যাগিং এবং ডিজিটাল সংযুক্তির জন্য একটি কর্মসূচি রূপায়ণ করা হচ্ছে বলে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু দপ্তরের মন্ত্রী শ্রী মুখতার আব্বাস নাকভি জানিয়েছেন। আজ নতুন দিল্লিতে তিনি কেন্দ্রীয় ওয়াকফ পর্ষদের বৈঠকে একথা জানান। মন্ত্রী বলেন, জিও ট্যাগিং এবং ডিজিটাল সংযুক্তির মতো উদ্যোগের ফলে ওয়াকফ সম্পত্তির নথিপত্র নিরাপদে রাখা যাবে এবং এ সংক্রান্ত যাবতীয় লেনদেনে স্বচ্ছতা আসবে। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর এই প্রথম ‘প্রধানমন্ত্রী জন বিকাশ কার্যক্রম’ (পিএমজেভিকে)-এর আওতায় ওয়াকফ সম্পত্তি ব্যবহার করে ১০০ শতাংশ সরকারি সহায়তায় স্কুল, কলেজ, আইটিআই, পলিটেকনিক, হাসপাতাল এবং কমিউনিটি হল নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। স্বাধীনতার পর থেকে অনগ্রসর অঞ্চলের অর্থনৈতিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া গোষ্ঠীগুলির কিশোরী ও বালিকাদের মধ্যে শিক্ষাগত ক্ষমতায়ন এবং কর্মসংস্থানমুখী দক্ষতা উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সারা দেশের ওয়াকফ সম্পত্তিগুলিকে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে তিনি জানান। পূর্ববর্তী সরকারের আমলে দেশের ৯০টি জেলাকে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য চিহ্নিত করা হয়েছিল। বর্তমান সরকার এই কর্মসূচিকে দেশের ৩০৮টি জেলায় প্রসারিত করেছে। তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন রাজ্যে ৫ লক্ষ ৭৭ হাজার নথিভুক্ত ওয়াকফ সম্পত্তিগুলিকে যথাযথভাবে কাজে লাগানোর জন্য আইনি প্রতিবন্ধকতা দূর করারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওয়াকফ সম্পত্তিগুলি সম্বন্ধে তথ্য সংগ্রহ করার জন্য আইআইটি রুরকি এবং আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাহায্যে কাজ চালানো হচ্ছে বলে মন্ত্রী জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here