জেরুজালেম চলচ্চিত্র উৎসব ২০২০তে ফোকাস কান্ট্রি হিসেবে ভারতকে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দিল ইজরায়েল

0
85
JERUSALEM Film festival 2009
JERUSALEM Film festival 2009

জেরুজালেম চলচ্চিত্র উৎসব ২০২০তে ফোকাস কান্ট্রি হিসেবে ভারতকে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দিল ইজরায়েল

কান চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশগুলির চলচ্চিত্র কমিশনারদের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনার সম্ভাবনা নিয়ে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের আলোচনা

যৌথভাবে চলচ্চিত্রের বিষয়বস্তু রচনার মাধ্যমে সৃজনশীল সহযোগিতার সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন : তথ্য ও সম্প্রচার সচিব অমিত খারে

By PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৭ মে, ২০১৯

কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের সচিব শ্রী অমিত খারের নেতৃত্বে একটি ভারতীয় প্রতিনিধিদল বৃহস্পতিবার কান চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশগুলির চলচ্চিত্র কমিশনারদের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে চলচ্চিত্রের দৃশ্যায়নের ক্ষেত্রে ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হিসেবে তুলে ধরতে যেসমস্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তার কথা বিশদে উল্লেখ করা হয়। চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সুবিধার্থে দৃশ্যায়নে অনুমোদনের জন্য ফিল্ম ফ্যাসিলিটেশন কার্যালয়ের উদ্যোগে যে একক জানালা ব্যবস্হা চালু করা হয়েছে সেকথাও প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে বৈঠকে উপস্হিত কমিশনারদের জানানো হয়। সিনেমার পাইরেসি বা নকল কপি রুখতে ভারত সরকার যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, তা নিয়েও বৈঠকে বিশদে আলোচনা হয়েছে।

ভারতীয় প্রতিনিধি দলের পক্ষ থেকে দেশে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত দক্ষ পেশাদার ও টেকনিশিয়ানদের যে প্রাচুর্য রয়েছে তার পূর্ণ সদ্বব্যবহারের সম্ভাবনার কথাও উল্লেখ করে জানানো হয় সিনেমার দৃশ্যায়ন পরবর্তী বিভিন্ন কাজের ক্ষেত্রেও ভারতের উত্থানের প্রভূত সম্ভাবনা রয়েছে। বৈঠকে কান চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণকারী দেশগুলির সঙ্গে যৌথ প্রযোজনার সম্ভাবনা খুঁজে বের করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক প্রযোজনা সংস্হাগুলির সঙ্গে সহযোগিতার সম্ভাবনা নিয়েও আলোচনা হয়। ভারতে চলচ্চিত্রের দৃশ্যায়নের ক্ষেত্রে বিদেশী ছবি নির্মাতাদের আরও উৎসাহিত করতে কেন্দ্রীয় সরকার বিভিন্ন সুবিধা ও আর্থিক ছাড় দেওয়ার কথাও বিবেচনা করছে বলে বৈঠকে জানানো হয়।

বৈঠকে শ্রী খারে দ্বিপাক্ষিক যৌথ-প্রযোজনা চুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র নির্মাতাদের একযোগে কাজ করার সম্ভাবনা নিয়েও তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করেন। এ ধরণের উদ্যোগের ফলে ভারতে একদিকে যেমন নতুন বাজার গড়ে উঠবে, অন্যদিকে তেমনই আরও বেশি সংখ্যক চলচ্চিত্র প্রেমীর কাছে পৌঁছানো সম্ভব হবে। সর্বোপরি ভারত বিশ্বমানের সিনেমার দৃশ্যায়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হয়ে উঠবে। এছাড়াও তিনি চলচ্চিত্রের বিষয়বস্তু বিনিময়ের মাধ্যমে সৃজলশীল সহযোগিতার সম্ভাবনা নিয়েও তাঁর অভিমত ব্যক্ত করেন। যৌথভাবে সিনেমার বিষয়বস্তু রচনার মাধ্যমে সাংস্কৃতিক আদান-প্রদানের সম্ভাবনা খুঁজে বের করার ওপরেও শ্রী খারে গুরুত্ব দেন।

বৈঠকে অস্ট্রিয়া, কোস্টারিকা, নরওয়ে, ফিলিপিন্স, ইতালী, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, তাইওয়ান, কানাডা প্রভৃতি দেশের চলচ্চিত্র কমিশনের আধিকারিকরা উপস্হিত ছিলেন।

এরপর ভারতীয় প্রতিনিধিদল ফিল্ম ফ্রান্সের সভাপতি মিঃ মার্ক টেশিয়ার সঙ্গেও বৈঠকে মিলিত হন। ভারত ও ফ্রান্সের মধ্যে বর্তমানে যৌথ প্রযোজনার ক্ষেত্রে যে চুক্তি রয়েছে, তা সংশোধন করার বিষয়েও তাদের মধ্যে আলোচনা হয়। উভয় পক্ষই এই চুক্তি সংশোধন করে চলচ্চিত্রের পাশাপাশি অ্যানিমেশন, গেমিং এবং ভিজুয়্যাল এফেক্টসের মতো বিষয়গুলিকেও অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে সম্মত হন। এই দুই দেশের মধ্যে নিবিড় সাংস্কৃতিক সম্পর্কের আরও প্রসারে কর্মশিবির আয়োজনের ব্যাপারেও উভয় পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়।

ইজরায়েলের সংস্কৃতি ও ক্রীড়া মন্ত্রকের চলচ্চিত্র দপ্তরের নির্দেশক শ্রীমতি এতি কোহেন-এর সঙ্গে ভারতীয় প্রতিনিধিদলের বৈঠকে আগামী বছর জেরুজালেমে আয়োজিত চলচ্চিত্র উৎসবে ফোকাস কান্ট্রি হিসেবে ভারতকে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। ইজরায়েলী প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে তাদের দেশে হিন্দি ছবি নিউটন নিয়ে যে গভীর আগ্রহ তৈরি হয়েছে, সে সম্পর্কেও ভারতীয় প্রতিনিধিদলকে জানানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here