Mamata Honored by Chembers Of Commerce – Five things Mamata Banerjee said at the felicitation ceremony by chambers of commerce

0
882
Mamata
Mamata

Five things Mamata Banerjee said at the felicitation ceremony by chambers of commerce

Five things Mamata Banerjee said at the felicitation ceremony by chambers of commerce

All the chambers of commerce in the city jointly hosted a felicitation programme today to mark the beginning of West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee’s second term in office. Altogether nine chambers of commerce, including two national industry associations – ASSOCHAM and FICCI, joined today’s programme.

This was the first such programme since Ms Banerjee came to power in May 2011.

 

The Indian Chamber of Commerce, which initiated the move, said that over the last five years, the Trinamool Congress government has made many overtures to industry, formally as well as informally, and that industrialists felt this was the right time to reciprocate.

Invitations were sent to the heads of all the city industry houses to attend the meeting and speak. The industry too was looking forward to hearing from Ms Banerjee her plans for the industry.

The chambers which participated at the meet are the Indian Chamber of Commerce (ICC), the Federation of Indian Chambers of Commerce and Industry (FICCI), the Associated Chambers of Commerce of India (ASSOCHAM), the Bengal Chamber of Commerce & Industry (BCC&I), the Merchants Chamber of Commerce (MCC), the Bengal National Chamber of Commerce and Industry, the Calcutta Chamber of Commerce (CCC) and the Oriental Chamber of Commerce (OCC).

 

Here are some excerpts from Mamata Banerjee’s speech:

On victory

This is a victory of the people. We dedicate this victory to the people. This is a victory of democracy, progress and harmony. This is a victory for constructive work. During the last five years, there was a lot of negative publicity. Some people with vested interests carried out negative publicity against Bengal. We worked hard to change the perception of the State.

On investor-friendly measures

There is no bandh or strike in Bengal now. Earlier the number of man-days lost due to bandhs was about 78 lakh; now it is zero. We started a single-window system of clearance. We started the Bengal Global Business Summit. We have a land bank and a land map. We are working hard as one family, the Paschim Banga Paribar.

Growth in Bengal

Bengal has the best investor-friendly atmosphere. A lot of positive work has happened. GVA growth of Bengal is 10.48% while that of India is 7.5%. Growth of per capita income in Bengal 12.84% while that of India is 6.1%. Increase in industry in Bengal is 8.34% while that in India is 5.6%. We performed despite inheriting a huge debt burden. Capital expenditure of Bengal grew six times in five years. State’s Plan Expenditure has increased by more than three folds. We doubled our revenue in just three years.

On GST

We are fighting for GST. It is a positive proposal. One-tax formula will work. We are in Opposition at the Centre but we believe in being constructive. We do not believe in opposing for the sake of it. We support pro-people policies.

On future course of action

We will create vision documents for 5 years, 10 years, and 15 years. Planning in advance will ensure that the process of development does not come to a halt. Enough has been said. It is time for action now.

Mamata - Chembers of Commerce
Mamata – Chembers of Commerce

মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীকে আজ সংবর্ধনা দিল বণিক মহল   

বিপুল ভোটে জয়ের জন্য আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সংবর্ধনা দিল বণিকমহল। তিনটি জাতীয় স্তরের বণিকসভা অ্যাসোচেম, ফিকি ও সিআইআই আজ মুখ্যমন্ত্রীকে সংবর্ধিত করে। আজ দুপুর ১টায় ললিত গ্রেট ইস্টার্নে হয় এই অনুষ্ঠান।

২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথমবার এই অনুষ্ঠান হতে চলেছে। ক্ষমতায় এসেই শিল্প স্থাপনে একাধিক উদ্যোগ নিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্ষমতায় আসার পর প্রথম পাঁচ বছরের শাসনকালে বিভিন্ন সময় লগ্নী টানতে রাজ্যে আন্তর্জাতিক স্তরে শিল্প সম্মেলন বসিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যের বণিকসভাগুলির মধ্যে রয়েছে বেঙ্গল চেম্বার, বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, এমসিসি চেম্বার অফ কমার্স, ওরিয়েন্টাল চেম্বার অফ কমার্স, ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স, ক্যালকাটা চেম্বার অফ কমার্স। এছাড়া রাজ্যস্তরের প্রথম সারির সব শিল্পপতিরাও উপস্থিত ছিলেন।

এখানে তার বক্তব্যের কিছু অংশঃ 

বিপুল জয় সম্বন্ধে বলেন

এই জয় মানুষের জয়, এই জয় গণতন্ত্রের, প্রগতির, সম্প্রিতির জয়। গত পাঁচ বছরে অনেক নেতিবাচক প্রচার হয়েছে, কিছু কিছু লোক বাংলার বিরুদ্ধে কুৎসা ও অপপ্রচার করে বেড়াচ্ছে সেই সবকিছু উপেক্ষা করে আমরা এই জয় পেয়েছি।

শিল্প-বান্ধব পরিবেশ সম্বন্ধে বলেন

বাংলায় এখন বনধের রাজনীতি বন্ধ হয়েছে, আগে বনধের কারণে ৭৮ লক্ষ শ্রম দিবস নষ্ট হয়েছে, এখন তা শূন্য। রাজ্যে আমরা শিল্প বাণিজ্য সম্মেলন শুরু করেছি। আমাদের ল্যান্ড ব্যাঙ্ক, ল্যান্ড ম্যাপ আছে। আমরা একটি পরিবারের মত সকলে একসাথে কঠোর পরিশ্রম করি।

বাংলার উন্নয়ন সম্বন্ধে বলেন

বাংলাই ভারতের শিল্প ও সংস্কৃতির রাজধানী। বাংলায় সবচেয়ে ভালো বিনিয়োগ বান্ধব পরিবেশ রয়েছে। অনেক ইতিবাচক কাজ হচ্ছে। বাংলার GVA গ্রোথ ১০.৪৮% যখন ভারতের GVA গ্রোথ ৭.৫%। বাংলার Per capita income বৃদ্ধির হার যখন ১২.৪৮% তখন ভারতের ৬.১%। বাংলায় শিল্প বৃদ্ধির হার যখন ৮.৩৪% তখন ভারতের হার ৫.৬%। গত পাঁচ বছরে ৬ বার বাংলায় মুলধনী ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। রাজ্যের পরিকল্পনা খাতে ব্যয় তিন গুন চেয়ে বেশি হয়ে গেছে। তিন বছরে রাজ্যের আয় দ্বিগুন হয়েছে। বিপুল ঋণের বোঝা থাকা সত্বেও উন্নয়নমূলক কাজের গতি স্তব্ধ হয়নি।

GST সম্বন্ধে বলেন

আমরা GST-র জন্য লড়াই করছি, এটি একটি ইতিবাচক প্রস্তাব। আমরা যেমন কেন্দ্রের সমালোচনা করি, তাদের বিরোধিতা করি তেমন তাদের ইতিবাচক সিদ্ধান্তগুলিকেও সমর্থন করি। আমরা গঠনমূলক কাজে বিশ্বাস করি, জনমুখী নীতিকে সমর্থন করি।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্বন্ধে বলেন

আমরা ৫-১০ ও ১৫ বছরের ভিশন ডকুমেন্ট তৈরি করব। আগে থেকে ভালভাবে প্ল্যানিং করলে উন্নয়নের কাজ থেমে যায় না। এখন কাজ করে দেখানোর সময় এসেছে।

Photo credit : www.thehindubusinessline.com and aitcofficial.org