Bengal Tourist will have home stay option in North Bengal – Bengal Govt to set up homestays in north Bengal

0
744
Darjeeling Tea Garden - Worker
Darjeeling Tea Garden - Worker

Bengal Govt to set up homestays in north Bengal

Bengal Govt to set up homestays in north Bengal

Homestays are gradually becoming an integral part of the tourism policy of the Bengal Government. A chain of homestays in Alipurduar district, branded Blue Home Stay, is going to be the latest addition. It would be inaugurated by Chief Minister Mamata Banerjee.

This State Government-assisted project is unique in the sense that all these homestays would involve Adivasi families of the district. Tourists would get to experience life as lived by Adivasi families. All the homestays would come up in forested areas, ideal for providing respite to the mind and the body. They would be blue in colour, hence the name.

Twelve homestays are going to be set up in the first phase of the project, in Chilapata, Totopara, Shalkumar Haat and Hatipota. In the second phase, 13 more are to come up in Chilapata, basti 28 and 29, and Madarihat.

The State Government is soon going to come up with a Homestay Policy. The policy would bring in transparency as well as fully exploit the potential of homestays.

Further developments are also in the offing: a tourist information centre in Alipurduar town, the district capital, introduction of more tourist taxis, tourism centres in Nararthali and Bhutanghat, and a tourist hub in Jayanti.

Mamata Banerjee has fulfilled a longstanding demand of the people of the region by creating the district of Alipurduar. Since Tourism has a lot of potential in this district of lush forested hills, wildlife, tea gardens and the unique Adivasis way of life, these steps would boost the fulfilment of that potential.

 

উত্তরবঙ্গে হোম স্টে তৈরী করছে রাজ্য সরকার

মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগে পর্যটনের ক্ষেত্রে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মাইলস্টোনের কাছাকাছি আলিপুরদুয়ার জেলা । আলিপুরদুয়ারে দীর্ঘ দুই দশকের দাবি পূরণ হতে চলেছে।যার  মধ্যে অন্যতম ‘এক জানলা ‘ ব্যবস্থায় কেবলমাত্র পর্যটকদের স্বার্থে জেলা সদরে নিৰ্দিষ্ট ‘ট্যুরিজম ইনফরমেশন সেন্টার ‘ তৈরীর জন্য জমি দেখার কাজ শুরু হয়েছে।

পর্যটনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ একটি কনসালটেটিভ কমিটি গড়তে প্রস্তাব গেছে রাজ্য সরকারের কাছে। রাজ্য সরকার নিৰ্দিষ্ট  “হোম স্টে ‘নীতি আনতে  চলেছে – যার ফলস্বরূপ জেলার ভিতরে থাকা প্রায় ২০০ হোম  স্টে- র জন্য নির্দিষ্ট নীতি আসতে চলেছে।  যাতে জেলার পর্যটন ব্যবস্থার যেমন স্বচ্ছতা আনতে চলেছে।  তেমনই জেলা পর্যটনের স্বার্থ ও পর্যটনের সন্মান দুই বৃদ্ধি পেতে চলেছে।

উল্লেখ্য , মুখ্যমন্ত্রী আলিপুরদুয়ারের থাকাকালীন জেলার মানচিত্র প্রথম ১২ টি সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত নতুন হোম স্টে উঁদ্বোধন হতে চলেছে। ‘হোম স্টে’ পরিকল্পনায় প্রথম দফায় চিলাপাতা, টোটোপাড়া ,শালকুমার হাট ,হাতিপোতার নিৰ্দিষ্ট ১২ টি আদিবাসী পরিবার হোম স্টে গুলি পরিচলনা করবে।দ্বিতীয় দফায় ফের তেমনই   আর ও ১৩টি  হোম স্টে তৈরী হবে চিলাপাতা , ২৮ ও ২৯ বস্তি ও মাদিরহাটের।

আলিপুরদুয়ারে পর্যটন নিয়ে বাইরে থেকে আসা পর্যটকরা বিভিন্ন সমস্যার  কথা তুলে ধরেন যার মধ্যে  অন্যতম ছিল হোম স্টে গুলির ভাড়া নিয়ে।অভিযোগ ছিল , একেক হোম,স্টে  থাকা -খাওয়া নিয়ে একেরকম অৰ্থ দাবি করছে।  কোনও নির্দিষ্ট সরকারি পারমিট যুক্ত টুরিস্ট ট্যাক্সি নেয়।যে যেমন পারছে ,তেমন টাকা নিচ্ছে গাড়ি ভাড়া।ছিল না কোনও পর্যটন ইনফরমেশন সেন্টার।পর্যটনের সঙ্গে জড়িতদের একটি অংশ স্পষ্ট বলেছে ,সব কিছু যেন অগোছালোভাবে চলছে।  নিয়মনীতি না থাকায় পুরপুরি ট্যাক্স থেকে বছরের পর  বছর বঞ্চিত হচ্ছে রাজ্য সাকার।  নিৰ্দিষ্ট রেট চ্যাটের দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে।ডুয়ার্স ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট অসোসিয়েশন ১৫ দফা দাবি  রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী কে পাঠান।নারারাথলি ,ভুটানঘাটে নতুন করে পর্যটন কেন্দ্র ,জয়ন্তীতে ট্যুরিস্ট হাবের জন্য পৃথকভাবে আলোচনা করা হবে বনদপ্তরের সঙ্গে।একইভাবে বক্সাতে হাতি সাফারি নিয়ে হবে আলোচনা।

সরকারের আর্থিক সাহায্যে হোম স্টে – গুলিকে সাজানো হচ্ছে। একটি আদিবাসী পরিবারে থাকার অনুভব কেমন তা সেখানে গেলেই বুঝতে পারবেন  পর্যটকরা। সরকারের হাতে নির্দিষ্টি রেট চার্ট থাকছে সেখানে। হোম স্টে নিয়ে কলকাতা থেকে আলিপুরদুয়ার ,অনলাইনে,সড়কের পাশে ডিসপ্লে করে প্রচার চলবে।নির্দিষ্ট ‘লোগো’ প্রায় তৈরি। যদি সরকারি সাহায্যে মডেল হোম স্টে হিসেবে জনপ্রিয় হয় , তবে জেলার বাকি  হোম স্টে গুলিও যেন একই নীতিতে নিময় মেনে পরিষেবা দেয়।সেইজন্য খুব দ্রুত বেসরকারি হোম  স্টে ট্যুর অপারেটরদের নিয়ে ও দ্রুত বৈঠক হবে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে।