Bengal stood 2nd in ODF status – Bengal leads among States in construction of toilets

0
1051
Pay and Use Toilet in India
Pay and Use Toilet in India
0 0
Azadi Ka Amrit Mahoutsav

InterServer Web Hosting and VPS
Read Time:7 Minute, 27 Second

Bengal leads among States in construction of toilets

Bengal leads among States in construction of toilets

The Bengal Government under Chief Minister Mamata Banerjee has been placing a lot of effort on achieving an open defecation-free (ODF) status for Bengal.

Till financial year 2016-17, Bengal has achieved almost 90 per cent (89.63%) of its ODF target, which is the second highest in the country, constructing 1,35,94,762 toilets. Not just that, of the number of toilets constructed, almost 12 per cent (11.8%) have been constructed in Bengal alone, which is also the second highest in the country.

Data from the Union Ministry of Drinking Water and Sanitation shows that 52,03,490 toilets for family dwellings, which is almost 40 per cent (38.28%) of the number of toilets constructed since 1999, were built during the four financial years from 2013-14 to 2016-17 – that is, from the time Mission Nirmal Bangla was adopted on November 19, 2013 (celebrated as World Toilet Day) by the Chief Minister Mamata Banerjee-led Trinamool Congress Government.

Not just that, this 52.03 lakh achieved during these four financial years has made Bengal the number one in the number of toilet units constructed for family dwellings (considering separately, number one during 2013-14 and 2014-15 and number two during 2015-16 and for 2016-17).

Nadia district has been the flag-bearer of the open defecation-free (ODF) movement, becoming, on April 30, 2015, the first district in the country to get the ODF status. Among the first four districts of the country be declared ODF, three were from Bengal.

Till date, five districts of Bengal have achieved the ODF status – Nadia, Hooghly, North 24 Parganas, Purba Medinipur and Cooch Behar. Two more are going to be declared as ODF districts soon – South 24 Parganas and Bardhaman.

 

শৌচাগার নির্মাণে শীর্ষে পশ্চিমবঙ্গ

জাতীর জনক মহাত্মা গান্ধী ১৯৪০ সালের ১৮ই আগস্ট ‘হরিজন’ পত্রিকায় লিখেছিলেন, “যদি গ্রাম পুননির্মাণের ক্ষেত্রে গ্রাম শৌচাগার অন্তর্ভুক্ত না হয়, তাহলে আমাদের গ্রামগুলো গোবর-গাদায় পরিণত হবে, যেমন আজও হয়েছে। গ্রাম্য শৌচাগারগুলো গ্রাম জীবনে যেমন একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ, তেমনই এটি একটি কঠিন কাজ। তাই এই দীর্ঘকালীন অশৌচাগারের সমস্যা নির্মূল করতে গেলে বিরোচিত প্রচেষ্টার প্রয়োজন”।

২০১৬-১৭ অর্থবর্ষের শেষে দেখা যাচ্ছে সারা ভারতের মধ্যে মোট শৌচাগার নির্মাণে পশ্চিমবঙ্গ দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে। সারা ভারতে যে মোট শৌচাগার নির্মিত হয়েছে তার প্রায় ১২ শতাংশই (১১.৮০ শতাংশ) নির্মিত হয়েছে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গেই। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে এই শৌচাগার নির্মাণের ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গে যে লক্ষ্যমাত্রা ধার্য হয়েছিল, তার প্রায় ৯০ শতাংশই (৮৯.৬৩ শতাংশ) অর্জন করা গিয়েছে ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষের শেষে।

(তথ্যসূত্রঃ Ministry of Drinking Water and Sanitation, Govt. of India.)

মোট শৌচাগার নির্মাণে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান ভারতের মধ্যে দ্বিতীয়

১৯৯৯-এর ১ এপ্রিল থেকে ২০১৬-১৭ পর্যন্ত ১৭ বছর সময়কালে পশ্চিমবঙ্গে ১ কোটি ৩৫ লক্ষ ৯৪ হাজার ৭৬২ টি পরিবারকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। মোট শৌচাগার নির্মাণে প্রথম উত্তরপ্রদেশ। ১৯ বছর সময়কালে উত্তরপ্রদেশ রাজ্যে শৌচাগার নির্মিত হয়েছে ১ কোটি ৩৮ লক্ষ ৩৬ হাজার ৫২ টি।

সারা ভারতে এই প্রকল্পে তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম যথাক্রমে মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশ ও গুজরাত। ১৯ বছর সময়কালে রাজ্যভিত্তিক মোট শৌচাগার নির্মাণে গুজরাতের চেয়ে পশ্চিমবঙ্গে দ্বিগুণের বেশি শৌচাগার নির্মিত হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে যেখানে শৌচাগার নির্মিত হয়েছে ১ কোটি ৩৫ লক্ষ, গুজরাতে এই সংখ্যা ৬৬ লক্ষ।

তবে রাজ্যভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গ এই ১৭ বছর সময়কালে তার নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ৯০ শতাংশ (৮৯.৬৩ শতাংশ) অর্জন করতে পেরেছে। পশ্চিমবঙ্গে মোট শৌচাগার নির্মাণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ কোটি ৫১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৮১৩ টি। ২০১৬-১৭-র শেষে মোট ১৭ বছর সময়কালে এই লখ্যমাত্রার প্রায় ৯০ শতাংশই অর্জন করা গিয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে মোট শৌচাগার নির্মাণের ৩৮ শতাংশের হয়েছে গত ৪ বছরেই

কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য থেকে দেখা যাচ্ছে ২০১৩-১৪, ২০১৪-১৫, ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে পশ্চিমবঙ্গে ৫২ লক্ষ ৩ হাজার ৪৯০ টি পারিবারিক শৌচাগার নির্মাণ করতে পেরেছে বর্তমান রাজ্য সরকার। অর্থাৎ বর্তমান রাজ্য সরকারের আমলে গত ৪ বছরে রাজ্যে যে সংখ্যায় পারিবারিক শৌচাগার নির্মিত হয়েছে তা গত ১৭ বছরে রাজ্যে মোট শৌচাগার নির্মাণের প্রায় ৪০ শতাংশ।

গত ৪ বছরে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান শীর্ষে

২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ অর্থবর্ষে মোট পারিবারিক শৌচাগার নির্মাণে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান ছিল ভারতের রাজ্যগুলির মধ্যে শীর্ষে। মোট শৌচাগার নির্মিত হয়েছিল ১৪ লক্ষ ৫৫ হাজার। নদিয়া জেলা ছিল ভারতশ্রেষ্ঠ। এর জন্য রাজ্য জাতিসংঘ জনসেবা পুরস্কার পেয়েছিল। ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান ভারতের রাজ্যগুলির মধ্যে দ্বিতীয়।

ওই বছর পারিবারিক শৌচাগার নির্মিত হয়েছে ১৪ লক্ষ ১৭ হাজার। প্রথম ছিল রাজস্থান। ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান ভারতের রাজ্যগুলির মধ্যে দ্বিতীয়। গত বছর রাজ্যে শৌচাগার নির্মিত হয়েছে ২৩ লক্ষ ৩১ হাজার। তাই সামগ্রিকভাবে গত ৪ বছরে পারিবারিক শৌচাগার নির্মাণে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান শীর্ষের তালিকায়। রাজ্যে নদিয়া ও হুগলি জেলায় ১০০ শতাংশ শৌচাগার নির্মাণ সফল হয়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষ থেকে কেন্দ্রের অনুদান কমে দাঁড়িয়েছে প্রায় অর্ধেক। তৎসত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান সরকার লক্ষ্যপূরণে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

Source:AITC Website

About Post Author

Editor Desk

Antara Tripathy M.Sc., B.Ed. by qualification and bring 15 years of media reporting experience.. Coverred many illustarted events like, G20, ICC,MCCI,British High Commission, Bangladesh etc. She took over from the founder Editor of IBG NEWS Suman Munshi (15/Mar/2012- 09/Aug/2018 and October 2020 to 13 June 2023).
Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
Advertisements

USD