ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেলেন ৫০০তম সুস্থ কোভিড-১৯ রোগী

0
284
ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতাল
ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতাল

ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেলেন ৫০০তম সুস্থ কোভিড১৯ রোগী

কলকাতা জুলাই ২০২০পয়লা জুলাই ন্যাশনাল ডক্টরস ডে উপলক্ষে হাওড়ার ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতাল থেকে ৫০০-তম সফল কোভিড-১৯ রোগীকে  মুক্তি দেওয়া হল। তিনি হলেন হাওড়া সাকলিয়ার ৯৫ বছরের এক বৃদ্ধ যিনি গত ২১-শে জুন কোভিড পজিটিভ নিয়ে সঞ্জীবন হাসপাতালে ভর্তি হন। ১০ দিন প্রকৃত যত্ন এবং পর্যবেক্ষণে থাকার পর তিনি এই ভয়াবহ রোগ থেকে নিজেকে মুক্ত করেছেন। যথাযত পরীক্ষা নিরীক্ষার পর, কোনো উপসর্গ না থাকায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আজ তাঁকে মুক্তি দেয়।  

সঞ্জীবন হাসপাতাল বিগত কয়েক মাস ধরে এই মহামারীর বিরুদ্ধে লোড়ে চলেছে। মাসের পর মাস এই ভয়াবহ রোগ থেকে সুস্থ করে তুলেছে সঞ্জীবন হাসপাতাল। যখন গোটা দেশ ন্যাশনাল ডক্টরস ডে পালন করছে, সঞ্জীবন হাসপাতাল ৫০০-তম রোগীকে মুক্তি দিয়ে এক নজির গড়ে তুললো, হাসপাতালের এই অবদান রয়ে যাবে ইতিহাসের পাতায়। এমনকি বিগত মাসে এক দিনে ১০০ জনের উপর করোনা আক্রান্তকে মুক্তি দেওয়ার নজিরও গড়েছে সঞ্জীবন হাসপাতাল।

ড: শুভাশিস মিত্র, ডিরেক্টর, সঞ্জীবন হাসপাতাল এদিন সাংবাদিকদের জানান ” আজ এক আনন্দের দিন আমাদের সকলের জন্য। আজ সাফল্যের সঙ্গে ৫০০তম কোভিড রোগীকে সুস্থ করে ঘরে ফেরাতে পেরে আমরা সকলেই গর্বিত। আজ ন্যাশনাল ডক্টরস ডে আমি আমার সকল সহকর্মী এবং সমস্ত ডাক্তারকে কুর্নিশ জানাই তাদের আপ্রাণ প্রচেষ্টার জন্য।”

সঞ্জীবন হাসপাতাল সমন্ধে: 

সঞ্জীবন হাসপাতাল, নম্বর ১. মাল্টি-স্পেশালিটি এবং সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল,  পশ্চিমবঙ্গের অন্যতম বৃহত্তমএবং সর্বাধিক প্রশংসিত হাসপাতাল,  যেখানে ৩০০ সুপার বেডের পরিষেবা আছে।৩০ বছরের অভিজ্ঞতার এক জোট করে অনকো-সার্জন ডাঃ সুভাষিস মিত্রের  এবং কিছু দক্ষ প্যারামেডিক্যাল  কর্মীদের কে নিয়ে পথ চলা শুরু করেছিল তাদের।